অধিক ভাড়া আদায়ে বিপাকে নোবিপ্রবিতে ভর্তিচ্ছুরা

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৬, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৩৯:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৬, ২০১৮
ফাইল ফটো

আমিনুল মহিম,নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীর ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৩ দিন ২৬,২৭ এবং ২৮ তারিখ অনুষ্ঠিত হবে।ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ঢাকা-নোয়াখালী রুট সহ দেশের অন্যান্য অঞ্চল থেকে আগত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে পরিবহন মালিকরা।

এতে করে বিপাকে পড়েছে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত ভর্তি পরীক্ষার্থীরা। ঢাকা থেকে আগত শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায় স্বাভাবিকের চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে পরিবহন মালিকরা।

এবার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করবে প্রায় ৭২ হাজার শিক্ষার্থী। যাদের অধিকাংশই রাজধানী ঢাকা সহ আশপাশের জেলা থেকে আগমন করছে। এই সুযোগে পরিবহন মালিকরা স্বাভাবিকের চেয়ে ভাড়া হাতিয়ে নিচ্ছে। যেখানে ঢাকা থেকে নোয়াখালী যাতায়াতের নিয়মিত বাস ভাড়া ছিল ৩৮০ টাকা। সেখানে ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে এই ভাড়া চার’শ থেকে পাঁচ’শ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে এই রুটের বিভিন্ন পরিবহন মালিকরা ।

ভর্তি পরীক্ষার দু’দিন আগে হিমাচল এবং একুশের একাধিক কাউন্টারে যোগাযোগ করা হলে প্রথমে তারা অগ্রিম টিকিট বন্ধ করে এবং ভাড়া বৃদ্ধির কথা জানায়। পরবর্তীতে যোগাযোগ করা হলে তারা ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়টি অস্বীকার করে। কিন্তু ২৬ অক্টোবর পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে আজ ২৫ অক্টোবর থেকে পরীক্ষার্থীদের নোয়াখালী আগমন শুরু হয়। তাদের বাস টিকিট থেকে নিশ্চিত হওয়া যায় হিমাচল এবং একুশে নামক ২টি পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়টি।

ছবিঃআমিনুল ইসলাম মহিম

এ বিষয়ে ভর্তিচ্ছু এক শিক্ষার্থীর কাছে জানতে চাইলে সে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলে ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রিক আমাদের ছুটে বেড়াতে হয় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে। ঠিক এসময় ভাড়া বানিজ্যের সুযোগ নেয় বিভিন্ন রুটের বাস মালিকরা। এসময় তারা নিয়মিতের চেয়ে দেড় থেকে দ্বিগুন ভাড়া করে বৃদ্ধি করে। যা আমাদের ভোগান্তির মাত্রা বৃদ্ধি করে। এ ব্যাপারে দ্বিতীয় বার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আসা এক শিক্ষার্থীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ‘গত সেশনে ভর্তি পরীক্ষার সময় শিক্ষার্থীদের থেকে স্বাভাবিকের চেয়ে দেড়গুন ভাড়া নেওয়া হয়েছিল।এবার ও ভাড়া বৃদ্ধি করছে ঠিক একই মাত্রায়। ভর্তি পরীক্ষার সময় এমন অযৌক্তিক ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়ে সংশ্লিষ্ট পক্ষ যাতে যাথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করেন।’

ভাড়া বৃদ্ধির ব্যপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. এস এম নজরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এই ব্যপারে ভর্তি কমিটির মিটিং এ আলোচনা হয়েছে। আমরা স্থানীয় সংসদ সদস্যের মাধ্যমে পরিবহনগুলোর সাথে কথা বললে তারা ভাড়া বৃদ্ধি না করার আশ্বাস দেয় ।তারপর ও যেহেতু আমাদের কাছে ভাড়া বৃদ্ধির অভিযোগ এসেছে আমরা বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখবো।