অনেকে যোগাযোগ করছে আ’লীগের সঙ্গে জোট করতে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৫৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ১:৫৫:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৮
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

জনবিছিন্ন নেতাদের ঐক্যে কিছু আসে যায় না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন কাদের।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সকালে বনানী কবরস্থানে ১৫ আগস্টের শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এদের মধ্যে অধিকাংশই জনবিচ্ছিন্ন। এই জনবিচ্ছিন্ন নেতাদের ঐক্যে বাংলাদেশের জনগণের কিছু আসে যায় না। এনিয়ে আমাদের কোনো দুশ্চিন্তা নেই।
তিনি বলেন, আমরা জানি, জনগণ আমাদের সঙ্গে আছে, আমরা জানি জনগণ আগামী নির্বাচনে জনগণ আওয়ামী লীগকে নৌকায় ভোট দেবে, শেখ হাসিনাকে ভোট দেবে।

সরকারের পদত্যাগ, জাতীয় সংসদ বাতিল, সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দাবির বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, মামা বাড়ির আবদার।

আ.লীগের সঙ্গে জোট করতে অনেকে যোগাযোগ করছে

আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটবদ্ধ নির্বাচন করতে অনেকে যোগাযোগ করছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অলরেডি আমাদের সঙ্গে দেখা করেছে জাকের পার্টি, সাত দলীয় একটা বাম জোট- অফিসে এসে একটা আবেদন রেখে গেছে। তারা আওয়ামী লীগের সঙ্গে কাজ করতে চায়। ইসলামী ফ্রন্টের বাহাদুর শাহ, তিনিও আওয়ামী লীগের সঙ্গে নির্বাচনী ঐক্যে শামিল হতে চান।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রতিদিনই দু’একটা দল আবেদন বা দেখা করে তারা তাদের আগ্রহের কথা প্রকাশ করছেন। তবে আমরা এখনো এ বিষয়ে মুখ খুলছি না। সবার কথা শুনছি। আমাদের নেত্রী দেশে ফিরলে কার্যনির্বাহী সংসদে বসে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো কাকে আমরা জোটে নেবো, কাকে নেবো না। আমাদের অলরেডি এদিকে ১৪ দল, ওইদিকে জাতীয় পার্টি আছে।

কাদের বলেন, জাতীয় পার্টিও আমাদের সঙ্গে মহাজোট করেছে। সবাইকে নিয়ে একটা কিছু করলে নির্বাচনী মহাজোট হতে পারে। সেটা নির্ভর করবে বাস্তব পরিস্থিতির ওপর, মেরুকরণের ওপর। আমরা জোটের পরিসর বাড়াবো কি বাড়াবো না। অথবা জোটবদ্ধ নির্বাচন করবো কিনা এটা আরো কয়েকদিন পরে সিদ্ধান্ত নেবো।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, অলি আহমেদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তবে তিনি আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটবদ্ধ নির্বাচন করতে চান এমন কোনো কথা হয়নি। আর বদরুদ্দোজা চৌধুরী সাহেবের যে যুক্তফ্রন্ট সেখানে তারা নিজেরাই বোধহয় একটা জোট করার চিন্তা-ভাবনা করছে আমি যতটুকু জানি।

‘ভালোই তো, আরো জোট হলে অসুবিধা তো নেই। ১৪টা হয়েছে, ২০টা ২৫টা হলে অসুবিধা তো নেই।’

নির্বাচনের আগে বিভিন্ন জোটের ভাঙা-গড়া প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রতিদিনই গড়ছে-ভাঙছে। মেকিং-ব্রেকিং দুটো বিষয় সমানে চলছে। শেষ পর্যন্ত পোলারাইজেশন, এরপর কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় তার ওপর নির্ভর করে নির্বাচনে অ্যালায়েন্সের সমীকরণ কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়।

আবারো ১/১১ এগারোর মতো পরিস্থিতি সৃষ্টির শঙ্কা আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, আমাদের কোনো আশঙ্কা নেই, দুশ্চিন্তা নেই। এ কারণে যে এটা ২০১৪ সাল নয়, ২০০১ সালও নয়। বিএনপি যদি মনে করে ২০০১ সালের মতো পরিস্থিতি তারা সৃষ্টি করবে আগামী ১৫-২০ দিনে, তারা বোকার স্বর্গে বাস করছে। সেটা সম্ভব নয়।

‘আমাদের সবচেয়ে বড় আত্মবিশ্বাস, বাংলাদেশে জনগণ এবার দৃঢ়ভাবে আমাদের সঙ্গে আছে। জনগণ শেখ হাসিনার সৎ, পরিশ্রমী উন্নয়নের নেতৃত্বে আস্থাশীল।’এর আগে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, মহানগর উত্তর দক্ষিণ ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের পক্ষ থেকে ১৫ আগস্টের শহীদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। দোয়া-মাহফিলেও অংশ নেন নেতা-কর্মীরা।

১৯৬৪ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্মৃতি-বিজড়িত ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু ভবনে শেখ রাসেল জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে নিহত হয় শিশু রাসেল।