আনোয়ার মুক্তিযোদ্ধার নাতি না, জাল সনদে ভর্তি বাতিল

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৪২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৪২:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০১৮

মুক্তিযোদ্ধার নাতি সেজে জাল সনদে ভর্তির অভিযোগে আনোয়ার হোসেন নামে এক ছাত্রের ভর্তি বাতিল করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) কর্তৃপক্ষ। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ওই সনদ দিয়ে ভর্তি হয়।

সে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার খাজা নগর গ্রামের মো. বাবুর আলীর ছেলে। একই জেলার মিরপুর উপজেলার তেঘরিয়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তারের সনদ ব্যবহার করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয় আনোয়ার।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানা যায়।

রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে বলা হয়েছে, আনোয়ার হোসেন মুক্তিযোদ্ধার নাতির ভূয়া পরিচয়ে ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হয়।

ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার বিষয়টি সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আনোয়ার হোসেনের ভর্তি বাতিল করা হল। গত ১৩ অক্টোবর আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার নাতির জাল সনদে ভর্তির অভিযোগে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

পরে ১৫ অক্টোবর বিষয়টি খতিয়ে দেখতে দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ওই কমিটির প্রতিবেদনে আনোয়ার মুক্তিযোদ্ধার নাতির ভূয়া পরিচয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছে বলে সত্যতা প্রমাণিত হয়।

ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগে আনোয়ার হোসেন এর শ্রেণি রোল ছিল— ১৫২৪০৮১ এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর— ১৭৬৯ ছিল।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান বলেন, ‘বিষয়টি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ওই শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ।’

উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, ‘বর্তমান প্রশাসন দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স জারি করেছে। ওই শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য প্রমানিত হওয়ায় আমরা তার ভর্তি বাতিল করেছি। এছাড়াও বিগত দুই-তিন বছরে কেউ মুক্তিযোদ্ধার ভূয়া সনদে ভর্তি হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে কমিটিকে নির্দেশ দিয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয়ে যে কেউ অনিয়ম করে ভর্তি হয়ে থাকলে তার ভর্তি বাতিল করা হবে।’