আমার কালেকশানে ৫০ হাজার বই আছে, এগুলো পড়তে শুরু করব: মুহিত

অবসরে কী করবেন এমন প্রশ্নে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৩৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৭, ২০১৯ | আপডেট: ৩:৩৪:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৭, ২০১৯

১০ বছর অর্থ মন্ত্রণালয় সামলানোর পর নতুন মন্ত্রিসভায় থাকছেন না আবুল মাল আবদুল মুহিত। প্রবীণ এই অর্থনীতিবিদ জানিয়েছেন, তিনি অবসর সময়ে বই পড়বেন ও লেখালেখি করবেন।

মন্ত্রী হিসেবে শেষ কার্যদিবস সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলছিলেন মুহিত। আগের দিনই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তিনি আর মন্ত্রী থাকছেন না, দায়িত্ব পাচ্ছেন আ হ ম মুস্তফা কামাল।

দুপুরে অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের পক্ষ থেকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

অবসরে কী করবেন- এমন প্রশ্নে সাংবাদিকদের মুহিত বলেন, ‘এখন থেকে অবসর সময়ে বই পড়ব ও লেখালেখি করব। আমার কালেকশানে ৫০ হাজার বই আছে। এগুলো সব পড়া হয়নি। চিন্তা করছি অবসরে গিয়ে এগুলো কিছু কিছু পড়তে শুরু করব।’

‘আরেকটি কাজ আমি করব। সেটা হচ্ছে এই পড়ার ওপরে আমি লেখালেখি করব।’

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের ভোটে জয়ের পর ৬ জানুয়ারি শপথ নেওয়া মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন মুহিত। সেই থেকে অর্থ মন্ত্রণালয় সামলাচ্ছেন তিনি। একটানা দিয়েছে ১০টি বাজেট।
মুহিত বলেন, ‘আমাকে বিদায় করা হয়নি। আমি নিজ ইচ্ছায় অবসরে যাচ্ছি। এটি একটি বিরল সম্মান ও সৌভাগ্যও বটে।’

বিদায়ী অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘৮৫ বছর বয়সেও বাংলাদেশের মতো একটি জটিল রাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রণালয়ের মতো একটি জটিল মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করেছি। গত ১০ বছরে বাংলাদেশ একটি পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে। এই ১০ বছর সুচারুভাবে সরকার পরিচালনা করেছি।’

‘এক সময় বাংলাদেশের পরিচয় ছিল ভিখারি দেশ হিসেবে। আজ বাংলাদেশ সে অবস্থানে নেই। আল্লাহর রহমত এবং সহকর্মীদের সহযোগিতা এই দুর্লভ কাজ করার ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা রেখেছে।

আমি বিশ্বাস করি, আগামী পাঁচ বছরে বাংলাদেশ যে অবস্থানে যাবে এবং বাংলাদেশের যে অগ্রগতি সূচিত হবে সেখান থেকে নামিয়ে আনার সাধ্য কারও হবে না।’

অর্থ সচিব আব্দুর রওফ তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিদায়ী প্রতিমন্ত্রী এবং নতুন মন্ত্রিসভায় নিয়োগ পাওয়া পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, সিজিএ মুসলিম চৌধুরী, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এ সময় উপস্থিত ছিলেন।