‘আমেরিকার আরেকটি পরাজয়’

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৪০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ১০:৪০:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩, ২০১৮

ইরানের পক্ষে আন্তর্জাতিক আদালতের রায় আমেরিকার আরেকটি পরাজয় বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাওয়াদ জারিফ। বুধবার জাওয়াদ জারিফ এক টুইট বার্তায় এসব কথা বলেন।

বুধবার ইন্টারন্যাশনার কোর্ট অব জাস্টিস ইরানে মানবিক সহায়তার সুরক্ষা ও বেসরকারী বিমান চলাচলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করনে ব্যবস্তা নিতে আমেরিকাকে নির্দেশ দিয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

চলতি বছরের জুলাই মাসে ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।এর পর নেদারল্যান্ডের হেগে অবস্থিত আন্তর্জাতিক আদালতে আমেরিকার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ইরান।

ইরানের অভিযোগ, ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দিয়ে ১৯৫৫ সালে তেহরান-ওয়াশিংটনের মধ্যে স্বাক্ষরিত অর্থনৈতিক সম্পর্ক সংক্রান্ত চুক্তি লঙ্ঘন করেছেন
মার্কির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের কোনো এখতিয়ার ওয়াশিংটনের নেই বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছে তেহরান।

প্রসঙ্গত,২০১৫ সালে ইরারে সাথে পরমাণু সমঝোতা সই করার পর কিছু নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছিল আমেরিকা। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্য এবং জার্মানির সমন্বয়ে গঠিত ছয় জাতিগোষ্ঠীর অন্য সব সদস্য এই সমঝোতা মেনে চলার প্রতিশ্রুতি দিলেও ট্রাম্প আন্তর্জাতিক এ চুক্তিকে মার্কিন স্বার্থবিরোধী আখ্যা দিয়ে চলতি বছরের ৮ মে ওই সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যান।

এরপর ইরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন ট্রাম্প ।

পরমাণু সমঝোতা স্বাক্ষরের আগে ইউরোপীয় দেশগুলো ইরান বিরোধী নিষেধাজ্ঞায় আমেরিকাকে সমর্থন দিলেও এবার ইউরোপীয়রা ট্রাম্পের পদক্ষেপকে স্বাগত জানায়নি।

এদিকে আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেলেও ইউরোপ ও চীন আমেরিকাকে বাদ দিয়ে ইরানের পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়ন ও দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞার প্রভাব কমাতে সম্মত হয়েছে।

সম্প্রতি নিউইয়র্কে ফ্রান্স, ব্রিটেন, জার্মান, রাশিয়া ও চীনের পরবাষ্ট্রমন্ত্রীরা ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাওয়াদ জারিফের সাথে বৈঠকে এ অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার পরও ইরানের তেলবিক্রি স্বাভাবিক রাখতে এবং ইরানের সঙ্গে ব্যাংকিং ব্যবস্থায় লেনদেন শুরু করতে একটি বিশেষ অর্থনৈতিক ব্যবস্থা গড়ে তোলারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।