আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়ে গেছেন আমাদের কি করার আছেঃচিকিৎসক

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:১৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮ | আপডেট: ১১:১৯:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮
ছবিঃ সংগৃহিত

স্বজনদেরকে‘আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়ে গেছেন আমাদের কি করার আছে’ বলে সান্ত্বনা দিয়ে ক্ষোভের সঞ্চার করেছে হাসপাতালের চিকিৎসক। ঘটনাটি ঘটেছে মাদারীপুরের রাজৈরে উপজেলার টেকেরহাট নিউ জমজম হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। মঙ্গলবার রাতের এই ঘটনা প্রকাশ পায় বুধবার বিকালে।

বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে ২০০২ সালে এই ধরনের মন্তব্য করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব হারান আলতাফ হোসেন চৌধুরী। গুলিতে শিশুর মৃত্যুর পর স্বজনদেরকে শান্তনা জানাতে গিয়ে সে সময়ের মন্ত্রী গণমাধ্যমের কাছে মন্তব্য করার সময় একই কথা বলেছিলেন।

শিশুটির স্বজনরা জানান, মঙ্গলবার বিকাল তিনটার দিকে উপজেলার কদমবাড়ী ইউনিয়নের মহিষমারী গ্রামের মন্তোষ সরকারের স্ত্রী মঞ্জু সরকারের প্রসব ব্যথা শুরু হয়। পরে তাকে নিউ জমজম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যায় মঞ্জু সরকারকে সিজার করলে জীবিত পুত্র সন্তানের জন্ম হয়।

শিশুটির বাবা মন্তোষ সরকার বলেন, ‘বাচ্চার কান্নার শব্দ ওটির বাইরে থেকে শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই কর্তৃপক্ষ নবজাতককে মৃত বলে ঘোষণা করে।’

এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে হাসপাতালের আশপাশের লোকজন এসে হট্টগোল শুরু করে। পরিস্থিতি সামাল দিতে কর্তৃপক্ষ খালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুল শাহ আলমকে খবর দেন। তিনি এসে বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সিজার ফাইলে ভর্তি ফরম পূরণ ছাড়া বাকি কাগজপত্রে ডাক্তার বা সহকারীদের কোনো নাম ঠিকানা নেই।

এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের একজন পংকজ কুমার মণ্ডল বলেন, ‘চিকিৎসক আঞ্জুমান আরা বেগম (মনি) সিজার করেছেন। এতে আমাদের কোন অবহেলা নেই। আল্লাহর মাল, আল্লাহ নিয়ে গেছেন,আমাদের কি করার আছেঃ। এই ঘটনাটি যাতে কেউ না জানে, সেটা আপনারা ব্যবস্থা করেন।’

প্রসূতি মঞ্জু সরকারের দেবর সন্তোষ সরকার বলেন, ‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় আমার ভাতিজার মৃত্যু হয়েছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই। এভাবে যেন আর কোনো মায়ের কোল খালি না হয়।’

মাদারীপুরের সিভিল সার্জন ফরিদ হোসেন মিয়া বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে ওই পরিবার থেকে অভিযোগ পেলে হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’