আসছে ৯৬ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০১৮ | আপডেট: ২:৩১:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০১৮
সংগৃহীত

সোমবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি। আগামী ৩ নভেম্বর সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে নোটিস দেয়া হবে বলেও জানান তিনি। আগামী ২১ দিনের মধ্যে সরকার আট দফা দাবি না মানলে ৯৬ ঘণ্টার কর্মসূচি দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন পরিবহন শ্রমিক নেতা ওসমান আলী।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার আমাদের কর্মসূচি আপাতত শেষ। এরপর আমরা সরকারকে আবারো নোটিশ দেব। ২১ দিনের মধ্যে সরকার দাবি না মানলে ৯৬ ঘণ্টার কর্মসূচি দেব।
এর আগে সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে শ্রমিকদের টানা ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘটে সাধারণ মানুষের সীমাহীন ভোগান্তির মধ্যে ফেলে সারা দেশের শ্রমিক ইউনিয়নগুলোর সবচেয়ে বড় মোর্চা সংগঠন সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন।





এ সংগঠনের প্রধান নেতা ও সরকারের নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান রোববার সাংবাদিকদের এ আন্দোলনের বিষয়ে বলেছেন, তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানেন না। সাপ্তাহিক দুদিনের ছুটি শেষে কর্মদিবসের প্রথম দিন রোববার সকাল ৬টা থেকে সারা দেশে ধর্মঘট শুরু হয়। আজ সোমবার হচ্ছে পরিবহন ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন।

এদিকে, রাজধানীর হাজার হাজার মানুষ দিনভর হেঁটে কার্যক্ষেত্রে চলছেন। বেশি ভাড়া দিয়ে রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও রাইডশেয়ারিং অ্যাপ পাঠাও-উবারের মোটরসাইকেলে করে গন্তব্যস্থলে যাচ্ছেন অনেকে।





মোটরসাইকেলের চালক, ব্যক্তিগত গাড়ির চালক কিংবা আরোহীদের মুখেও পোড়া মবিল মেখে দিয়ে ফেরত পাঠিয়ে দিচ্ছে ধর্মঘটের সমর্থনে রাস্তায় নামা শ্রমিকরা। এরই মধ্যে এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ সমালোচনাও হচ্ছে।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীতে বাস চাপায় দুই স্কুল শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর সারা দেশে শিক্ষার্থীদের নজিরবিহীন আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে সরকার দীর্ঘদিন ধরে ঝুলিয়ে রাখা সড়ক পরিবহন আইন পাস করে। কিন্তু ওই আইনের কয়েকটি ধারা নিয়ে আপত্তি জানিয়ে সেগুলো বাতিল করার দাবি তুলেছেন পরিবহন শ্রমিকরা।





তাদের দাবিগুলো হলো- সড়ক দুর্ঘটনার সব মামলা জামিনযোগ্য করা, দুর্ঘটনায় চালকের পাঁচ লাখ টাকা জরিমানার বিধান বাতিল, চালকের শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণির পরিবর্তে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত করা, ৩০২ ধারার মামলার তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক প্রতিনিধি রাখা, পুলিশি হয়রানি বন্ধ, ওয়ে স্কেলে জরিমানা কমানো ও শাস্তি বাতিল এবং গাড়ি নিবন্ধনের সময় শ্রমিক ফেডারেশন প্রতিনিধির প্রত্যয়ন বাধ্যতামূলক করা।

এর আগে গত ১২ অক্টোবর শ্রমিক ফেডারেশন সিদ্ধান্ত নেয়, সড়ক পরিবহন আইন সংস্কারসহ আট দফা দাবি ২৭ অক্টোবরের মধ্যে পূরণ না হলে ২৮ অক্টোবর থেকে দুদিনের কর্মবিরতিতে যাবে শ্রমিকরা।