আসামে লাইনে দাঁড় করিয়ে ৫ বাঙালিকে গুলি করে হত্যা

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:২৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৮ | আপডেট: ৪:৪৬:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৮
ফাইল ছবি

টিবিটি সারাবিশ্বঃঅসমের তিনসুকিয়ায় পাঁচ জনকে লাইন দিয়ে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করল জঙ্গিরা। মৃতদের মধ্যে তিন জন একই পরিবারের সদস্য। নিহতদের প্রত্যেকেই বাঙালি বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে। নিহতদের নাম শ্যামলাল বিশ্বাস, অনন্ত বিশ্বাস, অবিনাশ বিশ্বাস, সুবোধ দাস এবং ধনঞ্জয় নমশূদ্র।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার জঙ্গিরা আসামের ধোলা সাদিয়া সেতুর কাছে খেরবাড়ি এলাকায় এই হত্যাকান্ড চালায়। নিহতদের মধ্যে তিনজনই একই পরিবারের বলে জানা গেছে। আহত হয়েছে আরও একজন।

সূত্রের খবর, এদিন রাত সাড়ে আটটা নাগাদ হিন্দু বাঙালি সম্প্রদায়ের ওই ছয় ব্যক্তি খেরবাড়ি এলাকায় একটি মুদি দোকানে বসেছিলেন তখনই জঙ্গিরা জলপাই রঙের পোশাকা পড়ে এসে তাদের তুলে নিয়ে যায়।

পরে গুলি করে ব্রহ্মপুত্র নদের ধারে সারি বসিয়ে রাখে তাদের । এই হত্যাকান্ডের পিছনে ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব অসম- ইন্ডিপেডেন্ট (আলফা-আই)-র হাত রয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে সন্দেহ করা হয়েছে।

রাজ্যের এক সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা জানান ‘ঘটনাস্থলেই পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে এবং আহত ব্যক্তিকে তিনসুকিয়া সিভিল হাসপাতালে সঙ্কটজনক অবস্থায় ভর্তি করানো হয়েছে। আমরা অপরাধীদের সনাক্তকরণের চেষ্টা করছি। কিন্তু যেভাবে এই হত্যাকান্ড সংগঠিত হয়েছে তাতে সন্দেহের তীর আলফা (আই)-এর দিকেই যাচ্ছে।’

একদিকে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি)-এর চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশ নিয়ে রাজ্যে বিতর্কের ঝড় অন্যদিকে সম্প্রতি ‘নাগরিকত্ব সংশোধন বিল ২০১৬’ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে অসমের সরকার বিরোধী দলগুলি যখন রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ-আন্দোলন করছেন ঠিক সেই সময়ই এই হত্যাকান্ড। গোয়েন্দা রিপোর্টেও প্রকাশ ‘নাগরিকত্ব সংশোধন বিল ২০১৬’-কে যারা সমর্থন করছে তাদেরকে কড়া বার্তা দিতেই এই হত্যাকান্ড চালানো হয়েছে।

এই হত্যাকান্ডের নিন্দা জানিয়েছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন। ঘটনার পরই রাজ্যটির পানি সম্পদ মন্ত্রী কেশব মহান্ত এবং বিদ্যুৎ মন্ত্রী তপন কুমার গগৈ-কে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি রাজ্য পুলিশের ডিজি কুলা সাইকিয়া এবং অতিরিক্ত ডিজি মুকেশ আগরওয়ালকেও ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।