ইন্দোনেশীয়ায় বিধ্বস্ত প্লেনের পাইলট ভারতীয়

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৫৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৫৮:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০১৮
সংগৃহীত

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ভাবী সুনেজা পূর্ব দিল্লির ময়ূর বিহারের বাসিন্দা ছিলেন। তিনি স্থানীয় আহলকন পাবলিক স্কুলে পড়োশোনা করেন। পরে ২০১১ সালের মার্চে তিনি লায়ন এয়ারে যোগ দেন।

ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় লায়ন এয়ারের যে ফ্লাইটটি সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয়েছে, সেটির পাইলট ছিলেন ভারতীয়। ১১ হাজার ঘণ্টার চেয়েও বেশি উড্ডয়ন অভিজ্ঞা সম্পন্ন ওই পাইলটের নাম ভাবী সুনেজা। তিনি ২০১১ সালে লায়ন এয়ারে যোগ দিয়েছিলেন।

জানা গেছে, সুনেজা খুবই মিষ্টভাষী ব্যক্তি ছিলেন। দুর্ঘটনা মুক্ত প্লেন উড্ডয়নে তার রেকর্ড রয়েছে। সেইসঙ্গে মসৃণভাবে প্লেন চালনায়াও তার যথেষ্ট অভিজ্ঞতা ছিল।

সোমবার (২৯ অক্টোবর) ১৮৯ আরোহী নিয়ে লায়ন এয়ারের জেটি-৬১০ ফ্লাইটটি সমুদ্রে বিধবস্ত হয়ে যায়। এর আগে দেশটির রাজধানী জাকার্তা থেকে উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পরই বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্স-৮ প্লেনটি নিখোঁজ হয়।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, ফ্লাইটটি জাকার্তা থেকে বঙ্গকা বেলুটুং দ্বীপপুঞ্জের প্রধান শহর পাংকল পিনংয়ের উদ্দেশে সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ২০ মিনিটে উড্ডয়ন করে। এর ১৩ মিনিট পর অর্থাৎ ৬টা ৩৩ মিনিট থেকেই প্লেনটি এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারদের সঙ্গে যোগাযোগ হারিয়ে ফেলে। যা মাত্র এক ঘণ্টা পরই ৭টা ২০ মিনিটে অবতরণের কথা ছিল।

ইন্দোনেশীয় সংবাদমাধ্যম জাকার্তা পোস্ট বলছে, প্লেনটিতে দুই নবজাতক, এক শিশু, দুই পাইলট এবং ছয়জন কেবিন ক্রুসহ ১৮৯ জন আরোহী ছিলেন। প্রাথমিক জানা যায়নি এর আরোহীদের জাতীয়তা।