উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ডা. এবিএম আবদুল্লাহর কিছু পরামর্শ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৩৪:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০১৮
ছবিঃ সংগৃহিত

টক খাওয়ার সঙ্গে রক্তচাপের কোনো সম্পর্ক নেই। এটি একটি প্রচলিত বিশ্বাস যে টক খেলে রক্তচাপ কমে এবং এ জন্য অনেকে তেঁতুল গোলা, লেবু ইত্যাদি খেয়ে থাকেন। তেঁতুলে শক্তিশালী টারটারিক অ্যাসিড থাকায় এতে অনেকের পেটে সমস্যা হতে পারে।

তবে লবণের সঙ্গে রক্তচাপের সুস্পষ্ট সম্পর্ক আছে। তাই লবণ খাওয়া কমিয়ে দিতে হবে। এ ছাড়া রক্তচাপের রোগীরা স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস রপ্ত করুন, যেমন নিয়মিত হাঁটুন,ওজন কমান। নিয়মিত রক্তচাপ মাপুন ও ওষুধ সেবন করুন।





আবার লেবুর রস খেলে রক্তের চর্বি কেটে যায়, এটাও বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত নয়।

বরং তেঁতুলের পানি বা লেবুর রস একটু বেশি পান করলেই গলাজ্বলা, বুকজ্বলা ও টক ঢেঁকুর ওঠে। তখন রোগী আরও ঘাবড়ে গিয়ে ধারণা করতে পারেন যে এটা হার্টের ব্যথা কি না? তাই যাদের উচ্চরক্তচাপ আছে তাদের এসবে কান না দিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলা উচিত।





আবার অনেকেরই ধারণা, দুর্বল বা অসুস্থ লাগলে শিরায় দু-এক ব্যাগ স্যালাইন দেওয়া হলেই সুস্থ ও সবল লাগবে। আসলে ধারণাটি ঠিক নয়। বিভিন্ন ধরনের স্যালাইনে বিভিন্ন অনুপাতে লবণ ও গ্লুকোজের মিশ্রণ রয়েছে এবং বিভিন্ন ধরনের স্যালাইন ব্যবহারের সুনির্দিষ্ট কিছু কারণও আছে।

বিনা কারণে স্যালাইন দেওয়া হলে বরং হিতেবিপরীত হতে পারে। যেমন : অকারণে রক্তে লবণ বেড়ে যেতে পারে, উচ্চরক্তচাপ ও ডায়াবেটিস রোগীর রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে, এমনকি না বুঝে কিডনি ও হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে বেশি স্যালাইন দেওয়া হলে জীবনসংকট দেখা দিতে পারে।





পরামর্শদাতা : অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ

ডিন, মেডিসিন অনুষদ, বঙ্গবন্ধু শেখ

মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।