ঐক্যফ্রন্ট আমার ৫টি প্রশ্নের জবাব দিতে পারেনি : ইনু

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৫৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৫৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৮
ছবি: সংগৃহীত

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা তার পাঁচ প্রশ্নের জবাব দিতে পারেননি বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

৫ নভেম্বর, সোমবার বিকেলে রাজধানীর কচুক্ষেতে মিলি সুপার মার্কেটের সামনের চত্বরে জাসদের নির্বাচনি জনসভায় ইনু এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘একই সাথে নির্বাচন-গণতন্ত্রের কথা বলা আর খালেদা-তারেকের মুক্তি দাবি আসলে নির্বাচনকে জিম্মি করে ভয়ংকর অপরাধীদের ফেরেশতা বানানোর পাঁয়তারা। এ কারণেই ঐক্যফ্রন্ট তাদের সাত দফা পরিষ্কার করতে পারেনি, আমার পাঁচ প্রশ্নের জবাবও দিতে পারেনি।’

ওই সময় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেনের কাছে পাঁচটি প্রশ্ন পুনরায় উত্থাপন করে ইনু বলেন, ‘রাজবন্দির সংজ্ঞা কী, রাজবন্দির তালিকা কীভাবে তৈরি করবেন এবং তাতে কাদের নাম থাকবে? রাজনৈতিক মামলার সংজ্ঞা কী, নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় ব্যক্তি খুঁজে বের করার প্রক্রিয়া কী? সংবিধানের কোন জায়গায় নির্দলীয় নিরপেক্ষ ব্যক্তিকে প্রধানমন্ত্রী বানানোর বিধান আছে? সশস্ত্র বাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দেওয়ার নিয়ম কী? আইনের শাসন এবং নল যার হাতে তার কাছে কি বিচারিক ক্ষমতা দেওয়া যায়?’

‘গণতন্ত্রের বিকল্প সামরিকতন্ত্র নয়, মুক্তিযোদ্ধার বিকল্প রাজাকার নয়, উন্নয়নের নেত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প আগুন সন্ত্রাসের নেত্রী খালেদা জিয়া নয়’, মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে শান্তি আর উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে রাজাকার-জামায়াত সমর্থিত বিএনপিকে ক্ষমতার বাইরেই রাখতে হবে, শেখ হাসিনার সরকারকেই দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিতে হবে।’

ইনু বলেন, ‘যারা নির্বাচন-তফসিল পেছানোর দাবি করছেন, তারা আসলে নির্বাচন বানচাল করারই ষড়যন্ত্র করছেন।’

কাফরুল থানা জাসদ সভাপতি রাস মাসুদউর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় জাসদ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ঢাকা-১৫ আসনে মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম সুমন, ঢাকা-১৭ আসনে মীর হোসাইন আখতার ও ঢাকা-১৪ আসনে নূরুল আখতারের নাম প্রস্তাব করেন হাসানুল হক ইনু।