ঐক্য টেকাতে বিএনপিকে জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করতে হবে: ড. কামাল

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:২৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৯ | আপডেট: ৬:২৯:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৯
ড. কামাল হোসেন। ফাইল ছবি

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন আভাস দিলেন ঐক্য টেকাতে বিএনপিকে জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করতে হবে।

রাজধানীর আরামবাগে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শনিবার (১২ জানুয়ারি) বিকেলে দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আভাস দেন।

লিখিত বক্তব্যে মোস্তফা মোহসীন মন্টু আরো জানান, ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন জোরদার করার লক্ষ্যে অনতিবিলম্বে জেলায় জেলায় সাংগঠনিক সভা করবে গণফোরামের কেন্দ্রীয় নেতারা এবং আগামী ২৩ ও ২৪ মার্চ ঢাকায় গণফোরামের জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গণফোরাম নেতা অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মোকাব্বের খান, ড. রেজা কিবরিয়াসহ অন্যরা।

এর আগে লিখিত বক্তব্যে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, ‘তাড়াহুড়ো করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করতে গিয়ে অনিচ্ছাকৃত যেসব ভুলত্রুটি হয়েছে, তা সংশোধন করে ভবিষ্যতের জন্য সুদৃঢ় জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।’

‘এই অনিচ্ছাকৃত ভুলত্রুটি বলতে গণফোরাম কি জামায়াতের সঙ্গে নির্বাচনি ঐক্যকে বোঝাচ্ছে?’— এক সাংবাদিকের করা এমন প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘আমি যদি বলি ভালো উদাহরণ আপনি দিয়েছেন।

আমি অলরেডি পাবলিকলি বলেছি, এটা তো আমার জানাই ছিল না। আমি যখন এখানে (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট) সম্মতি দিয়েছি, তখন আমাকে এটা (জামায়াতকে আসন ছাড়ার বিষয়) জানানো হয়নি। সুতরাং আপনি ঠিকই ধরেছেন। আমার মতে এটা একটা ভুল।’

‘তাহলে কি আপনারা বিএনপিকে চাপ প্রয়োগ করবেন, জামায়াতকে ছেড়ে ঐক্যফ্রন্টে আসতে’— আরেকজন সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘আমি তো মনে করি সেটা বলা যেতে পারে।’

এ সময় মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, ‘আমরা কিন্তু ঐক্য করেছি বিএনপির সঙ্গে, ২০ দলের সঙ্গে না। তারপরও যখন জেনেছি জামায়াতকে আসন ছেড়ে দিচ্ছে, তখন বিএনপির সেক্রেটারি জেনারেলকে জানিয়েছি এবং তাদের মিটিংয়ে এটা উত্থাপন করেছি। তখন তারা এর প্রতিবাদ করে বলেছে, আমরা জামায়াত হিসেবে দিইনি, ধানের শীষ হিসেবে দিয়েছি।’

‘আমরা তখন বলেছি, অবিলম্বে ব্যাপারটা সুরাহা করার জন্য। আমরা জামায়াতের ব্যাপারটা সুরাহা চাই। আমরা পরিষ্কার করে বলেই দিয়েছি, জামায়াতকে নিয়ে আমাদের রাজনীতি করার ইচ্ছা নেই। আগেও করিনি, এখনো করি না, ভবিষ্যতেও করব না— বলেন মোস্তফা মোহসীন মন্টু।

‘তাহলে কী জামায়াতকে বাদ দিয়ে বিএনপিকে নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে শক্তিশালী করতে চাইছেন’— এমন প্রশ্নের জবাবে আবারও ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘জামায়াতের ব্যাপারে আপনারা তো পরিষ্কার বক্তব্য পেয়ে গেছেন। নির্বাচনের যে অভিজ্ঞতা আমাদের হয়েছে, সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে আজকে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে, আগামীতে বসে আমরা এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।’

‘যদি জামায়াতকে না ছাড়া বিএনপি, তখন গণফোরামের অবস্থান কী হবে?’— এমন প্রশ্নের জবাবে মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, ‘তখন আমরা বসে সিদ্ধান্ত নেব। অন্যদিকে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘জীবনে এতো হাইপোথিটিক্যাল প্রশ্নের উত্তর আমরা দিইনি। ‘যদি’র উত্তর ঘটনা ঘটলে দেব।’

বিষয়টি আরেকটু পরিষ্কার করতে বললে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘একদম পরিষ্কার। এর চেয়ে পরিষ্কার কীভাবে বলব? জামায়াতকে নিয়ে আমরা কোনোদিন রাজনীতি করার কথা চিন্তাও করিনি। যেটা বলা হয়েছে যে— ‘আমি করেছি’, সেটা আমি সঙ্গে সঙ্গে বলেছি— এটা তো আমাদেরকে বলা হয়নি যে, তারা থাকবে আমাদের সঙ্গে। ভবিষ্যতে এ ব্যাপারে একদম পরিষ্কার, জামায়াতকে নিয়ে আমরা রাজনীতি করব না।’

দুইজন সংসদ সদস্যের শপথের ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কী না জানতে চাইলে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমরা পরবর্তী সময় বসে সিদ্ধান্ত নেব।’
Add Image