কাতারের তেল পৌঁছালো ফিলিস্তিনের গাজায়

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৫৬:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০১৮

মানবেতর জীবন যাপনকারী ফিলিস্তিনের গাজাবাসীর জন্য জ্বালানি তেল পাঠিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশ কাতার। ইসরাইল হয়ে সেই তেলবাহী গাড়িবহর গাজায় প্রবেশ করেছে। ফিলিস্তিনের একটি সূত্র জানিয়েছে যে, গাজার দক্ষিাণাঞ্চলের কারাম আবু সালেম সীমান্ত দিয়ে মঙ্গলবার ৪ লাখ ৫০ হাজার লিটার তেলবাহী ৬টি ট্রাক গাজায় প্রবেশ করেছে। এই তেল গাজার বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ব্যবহৃত হবে।

হামাসের মুখপাত্র হাজেম কাশেম সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানান, কাতারের তেল গাজা উপত্যকার বিদ্যুৎ সরবরাহ উন্নতিতে ব্যবহৃত হবে।

উল্লেখ্য, ফিলিস্তিনের সমুদ্রবর্তী শহর গাজায় প্রায় ২০ লাখ মানুষ বাস করে। শহরটি গত ১১ বছর ধরে ইসরাইল এবং মিশরের সর্বাত্নক অবরোধের মুখে রয়েছে।

চলতি বছরের ৩০ মে থেকে প্রতি শুক্রবার গাজার ফিলিস্তিনিরা ইসরাইল-গাজা সীমান্তে বিদ্রোহ করছে। এখন পর্যন্ত মে মাসের পর থেকে নারী ও শিশুসহ প্রায় দুই শত ফিলিস্তিনি বিক্ষোভরত অবস্থায় ইসরাইলের গুলিতে নিহত হয়েছে।

কাতারের তেল গাজায় পৌঁছানো বিক্ষোভকারীদের জন্য এক প্রকার বিজয় হলেও এর মাধ্যমে ইসরাইলের সাথে গাজার সংঘর্ষ আরো বৃদ্ধি পেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এই পরিমাণ তেল দিয়ে গাজার ৬ মাসের প্রয়োজন মিটবে বলে ফিলিস্তিনের একটি সূত্রে জানা গেছে। গত কয়েকমাস ধরে গাজাবাসী দিনে ও রাতে মাত্র ৪ ঘন্টা করে বিদ্যুৎ পাচ্ছে।

এদিকে বাগড়া বাধাচ্ছে ফিলিস্তিনের ক্ষমতাসীন ফাতাহ সরকার। ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর নিয়ন্ত্রণকারী ফাতাহ সরকারের প্রধানমন্ত্রী রামি হামদুল্লাহর মুখপাত্র বলেন, আন্তর্জাতিক কোন সাহায্য ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের যোগাযোগ ও অনুমতি নিয়ে গাজায় যেতে হবে।

ফিলিস্তিনিদের ঐক্যের জন্যই এটা দরকার বলে মত প্রকাশ করেন তিনি। তিনি বলেন, পশ্চিম তীর থেকে গাজাকে পৃথক করার যে কোন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন বন্ধ করতে হবে।

এছাড়া প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের মুখপাত্র আজ্জাম আল-আহমদ হুশিয়ারি উচ্চারণ করে এক বিবৃতিতে বলেছেন, তেল গ্রহণ যদি অব্যাহত থাকে তাহলে গাজার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে জাতিসংঘ সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, গাজার ওপরে ইসরাইলের ১১ বছরের অবরোধ প্রত্যাহার না করলে সেখানে ব্যাপক মানবিক বিপর্যয় দেখা দিবে।

মূলত জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় ইসরাইলের ভূখন্ড ব্যবহার করে গাজায় এই তেল সহযোগিতা প্রেরণ করলো কাতার।

কাতারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, জাতিসংঘের উদ্বেগ ও আহ্বানের কারণে গাজার বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধানে সাহায্য করতে এই তেল পাঠিয়েছে তারা।