খালেদার মুক্তি চাই, কোনো দয়াভিক্ষা নয়: ফখরুল

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮ | আপডেট: ৮:২৬:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮

দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি পাপ্য বলে মনে করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে।

এটি তাঁর প্রাপ্য, আমরা সরকারের কাছে বা কারো কাছে কোনো দয়াভিক্ষা চাইছি না। দেশের একজন সম্মানিত নাগরিক হিসেবে তাঁর সাংবিধানিক অধিকার অবশ্যই দিতে হবে।
আজ সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত বিএনপির মানববন্ধনে ফখরুল এ কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমাদের নেত্রী গত আট মাস কারারুদ্ধ। তাঁকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় আটকে রাখা হয়েছে। উচ্চ আদালত তাঁকে জামিন দিলেও সরকার একটার পর একটা মিথ্যা মামলা দিয়ে আটকে রাখছে। তারা চায়, বিএনপি ও দেশনেত্রীকে বাইরে রেখে নির্বাচন করতে।

নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি করে ফখরুল বলেন, সরকার যদি খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয় তাহলে বোঝা যাবে এই সরকার নির্বাচন চায়। মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আল নোমান, বরকত উল্লাহ বুলু, সেলিমা রহমান, ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, হাবিবুর রহমান হাবিব, জয়নুল আবদিন ফারুক, আব্দুস সালাম, যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম খান নাসিম, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব আহসান প্রমুখ।

মানববন্ধন পরিচালনা করেন বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম আলিম। প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে বিএনপির শীর্ষ নেত্রী খালেদা জিয়া গত ৮ এপ্রিল থেকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি।