খাসোগির আঙুল কেটে পাঠানো হয়েছিল যুবরাজের কাছে!

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৩৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৩৯:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার পর খুন হওয়া সাংবাদিক জামাল খাশোগির মরদেহের অংশ বিশেষ পাওয়া গেছে। তুরস্কে নিযুক্ত সৌদি কনসাল জেনারেলের বাসভবনের বাগানে তার লাশের একটি অংশ পাওয়া যায় বলে মঙ্গলবার (২৩ অক্টোবর) জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম স্কাই নিউজসহ বেশ কিছু আন্তজার্তির গণমাধ্যম।

এরপর প্রকাশ্যে আসে নতুন এক তথ্য। যেখানে বলা হচ্ছে, সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার পর তাঁর একটি আঙুল সৌদি আরবে নিয়ে গিয়েছিলেন ঘাতক দলের সদস্যরা। হত্যা মিশন সফল হয়েছে প্রমাণ করতেই সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান এই আদেশ দিয়েছিলেন। রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাত দিয়ে ইরানের তেহরান টাইমস এবং যুক্তরাজ্যর মিরর ডট কমের প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে।

কিছু আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলে হয়েছে, খাসোগির কাটা আঙুল সৌদি যুবরাজ সালমানের কাছে উপস্থাপন করা হয়েছিল। রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, ‘যুবরাজ সালমান সব সময়ই বলে থাকেন, যেসব লেখক তাঁর সমালোচনা করবেন, তাঁদের আঙুল তিনি কেটে ফেলবেন। সাংবাদিক জামাল খাসোগির সঙ্গে এমনটাই ঘটেছে বলে ধারণা করা যায়।’

তবে খাসোগির কাটা আঙুল সালমানের কাছে উপস্থাপনের পর তা কোথায় রাখা হয়েছে, তা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়নি।

সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সৌদি কর্তৃপক্ষ শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) স্বীকারোক্তি দেয়। তারা দাবি করে, গোয়েন্দা স্কোয়াডের সদস্যদের সঙ্গে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে তিনি নিহত হন। সৌদি আরব বলছে, কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা ছাড়াই ১৫ সদস্যের গোয়েন্দা স্কোয়াড নীতিবর্জিত অবস্থান থেকে খাশোগিকে খুন করেছেন।

ফক্স নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবেইর দাবি করেছেন, ওই গোয়েন্দা সদস্যরা ‘ভুলবশত’ খাশোগিকে খুন করার পাশাপাশি ঘটনাটি আড়াল করতে চেয়েছেন।

হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, জামাল খাশোগিকে হত্যার ঘটনায় দায়ীদের সাজা দিতে সৌদি আরব বদ্ধপরিকর।

এরপর খাশোগিকে হত্যার ঘটনায় দেশটি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে জার্মানি। জামাল খাশোগি হত্যাকার বিষয়টি পরিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত সৌদিকে আর কোনো অস্ত্র দেবে না দেশটি। রোববার (২১ অক্টোবর) এ ঘোষণা দিয়েছে দেশটির চ্যান্সেলর।

অসমর্থিত সূত্রের বরাত দিয়ে স্কাই নিউজ জানায়, জামাল খাশোগির দেহ কেটে ফেলা হয়েছে এবং চেহারা বিকৃত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে খাশোগি ইস্যুতে বক্তব্য দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। এখনও খাশোগির লাশ কেন পাওয়া যায়নি তা জানাতে সৌদির প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

তুর্কি বাগদত্তার সাথে বিয়ের প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র আনতে গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর নিখোঁজ হন ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার কলাম লেখক ও স্বেচ্ছা-নির্বাসিত সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি।