গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ছাত্রী হোস্টেল পরিদর্শন করে যা বললেন কাদের সিদ্দিকী

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০১৮ | আপডেট: ৭:৪৯:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০১৮
ছবিঃ সংগৃহিত

টিবিটি জাতীয়ঃগণস্বাস্থ্য কেন্দ্র পরিদর্শনে আসা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বীরউত্তম বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. নাজিম উদ্দিন শিক্ষার্থীদের এ মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেন।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জায়গা দখল, দুর্বৃত্তদের হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে হামলার খবর শুনে আজ শনিবার প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শনে গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি দেখার পর ক্ষোভ প্রকাশ করেন কাদের সিদ্দিকী।

স্বাধীনতা যুদ্ধে মু্ক্তিযোদ্ধাদের সেবা প্রদান করা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে এক মহান প্রতিষ্ঠান উল্লেখ করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘কেবলমাত্র রাজনৈতিক কারণে এই প্রতিষ্ঠানকে ক্ষতিগ্রস্ত করা হচ্ছে। যা উচিত হচ্ছে না।’

কেন্দ্রের নারী হোস্টেলে দুর্বৃত্তদের হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘নারী হোস্টেলে হামলার শিকার মেয়েদের যে আকুতি আমি শুনেছি, স্বাধীন দেশে তা ভাবাই যায় না। আমি অত্যন্ত মর্মাহত’।

হামলাকারীরা কেন্দ্রের অসংখ্য গাছ কেটে ফেলেছে। এ ঘটনা নিজ সন্তানের গলা কেটে হত্যার মতো দুঃখজনক উল্লেখ করে কাদের সিদ্দিকী আরো বলেন, ‘গাছ বোনা সহজ, কিন্তু কাটা কঠিন। অন্য ঘটনা বাদ দিলাম, যারা গাছ কেটেছে তাদের ১২ বছরের জেল দেওয়া উচিত।’

উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার নিজের জায়গা দাবি করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পাবলিক হেলথ অ্যাসোসিয়েশন (পিএইচএ) ভবনে প্রবেশের রাস্তা দখল করে নেন সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন। আমিনুল ইসলাম নামে অপর এক ব্যক্তিও একই দাবি তুলে সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দখল করে নেন কেন্দ্রের আরো কিছু জায়গা।

এর আগে আশুলিয়ায় জমি দখলের চেষ্টা, ভাঙচুর ও চুরির অভিযোগে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করা হয়। উচ্চ আদালত থেকে এই তিন মামলায় আগাম জামিন নেন ডা. জাফরুল্লাহ।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১ টায় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বীরউত্তম বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসেন। এ সময় তিনি গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজে চিকিৎসারত সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র র‌্যাবের গুলিতে পা হারানো লিমন হোসেনের স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেন।

পরে তিনি পিএইচএ ভবনে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে দেখেন। পিএইচএ এলাকায় সন্ত্রাসীদের গাছ কেটে নেয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন এবং বলেন রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় কোন প্রতিষ্ঠানের সম্পদ নষ্ট করা ও গাছ কেটে পরিবেশ ধ্বংস করা কারো কাম্য হতে পারে না।