চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তালেবানের সফল বৈঠক

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০২১ | আপডেট: ৬:০৬:অপরাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০২১

আফগানিস্তানের উগ্রবাদী গোষ্ঠী তালেবানের ৯ সদস্যের এক প্রতিনিধিদল চীন সফর করেছে। সফরকালে তারা চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন ই’র সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এসময় চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পূর্ব তুর্কিস্তান ইসলামিক আন্দোলনকে চীনের জাতীয় নিরাপত্তার হুমকি হিসেবে উল্লেখ করে সংগঠনটি দমনে তালেবানের সহায়তা চান।

বুধবার (২৮ জুলাই) তালেবানের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাইম টুইটারে এ বৈঠকের তথ্য জানিয়েছেন। এছাড়া চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও বৈঠকের তথ্য প্রকাশ করেছে।

তালেবান মুখপাত্র মোহাম্মদ নায়িম এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘রাজনীতি, অর্থনীতি ও উভয় দেশের নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট ইস্যু এবং আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি ও শান্তি প্রক্রিয়া নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।’

তালেবান আলোচক এবং ডেপুটি নেতা মোল্যা বারাদার আখুন্দের নেতৃত্বাধীন দলটি চীনের আফগান বিষয়ক বিশেষ দূতের সঙ্গেও বৈঠক করেন। এছাড়া চীনা কর্তৃপক্ষের আমন্ত্রণে একটি ভ্রমণেও অংশ নিয়েছেন তারা। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন, উত্তরাঞ্চলীয় শহর তিয়ানজিনে তালেবান প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই।

ধারণা করা হচ্ছে, আফগানিস্তানে যখন সহিংসতা বাড়ছে সেই মুহূর্তে চীন সফরের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বীকৃতি নিশ্চিতের চেষ্টা করছে তালেবান। গোষ্ঠীটির কাতারে একটি রাজনৈতিক কার্যালয় রয়েছে, সেখানেই শান্তি আলোচনা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এই মাসে তালেবান প্রতিনিধিরা ইরানও সফর করেছেন। সেখানে আফগান সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন তালেবান প্রতিনিধিরা।

যুক্তরাষ্ট্র সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর আফগানিস্তানের নিরাপত্তা ক্রমেই ভেঙে পড়ছে। চীন সীমান্তবর্তী আফগানিস্তানের বিস্তৃত এলাকা নতুন করে দখল করে নিতে শুরু করেছে তালেবান। কাতারের শান্তি আলোচনায় অগ্রগতি না হলেও আফগানিস্তানের নতুন নতুন জেলা আর সীমান্ত ক্রসিং দখলে নিচ্ছে তালেবান।

তালেবান মুখপাত্র মোহাম্মদ নায়িম এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘প্রতিনিধিরা চীনকে আশ্বস্ত করেছে যে আফগানিস্তানের ভূমি বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত হতে দেওয়া হবে না।’ এছাড়া চীনও আশ্বস্ত করেছে যে আফগানদের সহায়তা অব্যাহত রাখবে বেইজিং। তবে চীন আফগানিস্তানের কোনও ইস্যুতে হস্তক্ষেপ করবে না কিন্তু সমস্যা সমাধান এবং দেশটিতে শান্তি স্থাপনে সহায়তা দেবে।

সূত্র: রয়টার্স।