জিয়ার আগেই স্বাধীনতার ঘোষণা আসে বঙ্গবন্ধুর নামে

ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় সৈয়দ ইব্রাহিম

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:১৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০১৮ | আপডেট: ৪:১৪:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০১৮
সংগৃহীত

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে বক্তব্য দেওয়ার সময় এই ঘোষণা দেন তিনি। সৈয়দ ইব্রাহিম বলেন, ১৯৭১ সালে চট্টগ্রামের কালুরঘাত বেতার কেন্দ্র থেকে প্রথমে বঙ্গবন্ধুর নামে স্বাধীনতার ঘোষণা দেয়া হয়। পরে জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা করেন।

চট্টগ্রামের কালুরঘাটের বেতারকেন্দ্র থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা প্রথমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামেই দেওয়া হয় বলে মন্তব্য করেছেন কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম।

জনসভায় শুরুতেই পরিত্র কোরআন তেলাওয়াত করে ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা শাহ মো. নেছারুল হক। পরে গীতাপাঠ করেন বিএনপি নেতা বাবু রমেশ দত্ত। এরপর ত্রিপিটক পাঠ করা হয় এবং বাইবেল পাট করেন যুবদলের নেতা এ্যালপার্ট প্রি কস্টা।

‘সরকারের পদত্যাগ, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীর নিঃশর্ত মুক্তি ও ৭ দফা দাবি আদায়’ উপলক্ষে এ জনসভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এদিকে ঐক্যফ্রন্টের জনসভাকে কেন্দ্র করে শাহবাগ মোড়, মৎস্য ভবন ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সামনে কঠোর নিরাপত্তার বলর গড়ে তুলেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পাশাপাশি সাদা পোশাকে বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীদেরও দেখা গেছে।

এর আগে সকাল পৌনে ১২ টা থেকে জাসাসের নেতৃত্বে জনসভায় গান পরিবেশন শুরু হয়। জনসভা শুরুর আগ পর্যন্ত এই গান পরিবেশন করা হয়।

মঞ্চে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রহমান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, জয়নুল আবেদীন ফারুক, আতাউর রহমান ঢালী, আতাউর রহমান ঢালী, সৈয়দ মোয়াজ্জম হোসেন আলাল, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সহসাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মুনির খান ও সহদপ্তর সহম্পাদক সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, ২০ দলীয় জোট নেতা সৈয়দ মুহাম্মাদ ইবরাহিম, মোস্তাফিজুর রহমান ইরানসহ প্রমুখ উপস্থিত আছেন।