ঠাকুরগাঁওয়ে ২ লাখ টাকায় ধর্ষণচেষ্টার ঘটনা রফা, ছাত্রীর পরিবার পেল ৫০ হাজার

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০১৯ | আপডেট: ১২:৪৬:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০১৯
ছবি : প্রতীকী

এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ মোহাম্মদপুর গ্রামে ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর ওই শিক্ষককে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হলেও ৫০ হাজার টাকা পেয়েছে ছাত্রীর পরিবার।

গত ২ ডিসেম্বর মোহাম্মদপুর বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দুই পক্ষকে পরিষদে হাজির হতে বলেন ইউপি চেয়ারম্যান সোহাগ।

গত মঙ্গলবার সবার উপস্থিতিতে অভিযুক্তকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু মেয়ের বাবাকে দেওয়া হয় ৫০ হাজার টাকা। বাকি টাকা লুটপাট হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি আশিকুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত মোহাম্মদপুর বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোনো শিক্ষার্থী বা শিক্ষককে পাওয়া যায়নি।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মেয়েটির বাবা বলেন, চেয়ারম্যান পরিষদে ডেকে নিয়ে দুই লাখ টাকায় মীমাংসা করে দেন। আমাকে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছেন। পরিষদে মীমাংসার সময় উপস্থিত থাকা এক ব্যক্তি বলেন, চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্তে সেই শিক্ষকের কাছে দুই লাখ টাকা ও আপসনামায় স্বাক্ষর নেওয়া হয়েছে। সাক্ষী হিসেবে আমিও স্বাক্ষর করেছি। সব টাকা মেয়ের বাবা পায়নি। বিষয়টি চেয়ারম্যান বলতে পারবেন।

ইউপি চেয়ারম্যান সোহাগ বলেন, মোহাম্মদপুর এলাকায় ভুল বোঝাবুঝির একটি ঘটনা ঘটেছিল, যা দু’পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সমাধান করা হয়েছে। নির্যাতিত ছাত্রীর বাবাকে দুই লাখ টাকার স্থলে ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে কথা বলতে রাজি হননি তিনি।