ডুবন্ত নৌকা আর ভাসবে না : রিজভী

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩৩ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮ | আপডেট: ১১:৩৩:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ফাইল ছবি

যতই ট্রেন ও লঞ্চে চড়েন না কেন ডুবন্ত নৌকাকে আর ভাসানো যাবে না বলে ক্ষমতাসীনদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচির ওপর পুলিশের আক্রমণ নৃশংস দস্যুতার নামান্তর মাত্র মন্তব্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, এসব করে সরকারের শেষ রক্ষা হবে না। যতই ট্রেন ও লঞ্চে চড়ন না কেন ডুবন্ত নৌকাকে আর ভাসানো যাবে না। ছলচাতুরী আর নিপীড়ন-নির্যাতনের অবসান হতে আর বেশি দিন সময় নেই।

তিনি বলেন, সরকার বিদায়ের প্রাক্কালে আতঙ্কিত হয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে বিরোধী দলের কর্মসূচির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে। দলমন্য কিছু সংখ্যক পুলিশকে ব্যবহার করে সমগ্র পুলিশ বাহিনীকেই বিতর্কিত করছে সরকার। পুলিশকে জনগণের বিরুদ্ধে ব্যবহার করে তাদের ভাবমূর্তিকে চরম কালিমালিপ্ত করা হচ্ছে। পুলিশের ওপর জনগণের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায়।

পুলিশ এখন আইনের লোক হওয়ার বদলে আওয়ামী লীগের লোক হওয়ার কারণে কবর থেকে উঠে আসা লাশের বিরুদ্ধে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে ককটেল ছুঁড়ে মারার মামলা দেয়া হয়। বাদী আসামীকে না চিনলেও পুলিশ আসামীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা দেয়। ঘটনা না ঘটলেও অগ্রিম মামলা হয় থানায়, গাড়ি অক্ষত থাকলেও গাড়ি পোড়ানো ও ভাংচুরের মামলা দেয় পুলিশ, হজে থাকা লোকও এখন গায়েবি নাশকতা মামলার আসামী হচ্ছে। এসব করে সারাদেশে গায়েবি মামলা, গায়েবি কাহিনী রচনা করে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার পাহাড় তৈরি করা হয়েছে।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও নি:শর্ত মুক্তির দাবিতে সোমবার বিএনপির উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাব এবং দেশব্যাপী জেলা ও মহানগর সদরে শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে আসা ও যাওয়ার পথে সরকারের আজ্ঞাবহ পুলিশ বাহিনী বিনা উস্কানিতে ঢাকাসহ দেশব্যাপী বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনসমূহের প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মীকে আটক করে নিয়ে যায়। এসময় বিএনপি নির্বাহী কমিটির জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সহসম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আব্দুল মতিন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ লেবার পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলমকে আটক করেছে পুলিশ।