ড. কামালকে জেনে বুঝে ভুলের খেসারত দিতে হবে: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত: ৩:৫০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০১৯ | আপডেট: ৩:৫০:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০১৯
ছবি:সংগৃহিত

বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে জামায়াতে নেতাদের প্রার্থী করা ‘ভুল’ ছিল-  ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামালের এমন স্বীকারোক্তির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, কামাল সাহেবকে সেই ভুলের খেসারত দিতে হবে। রোববার (১৩ জানুয়ারী )সকালে রাজধানীর  আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা এবং আশপাশের জেলা, উপজেলা, পৌরসভা পর্যায়ের কমিটিগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, মেয়র, উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রদের সঙ্গে যৌথসভা শেষে সাংবাদিক ব্রিফিংয়ে ওবায়দুল কাদের এসকল মন্তব্য করেন।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেন বলেন- তিনি কখনই জামায়াতের সঙ্গে রাজনীতি করেননি। ভবিষ্যতেও করবেন না। তবে একাদশ নির্বাচনে জামায়াতকে সঙ্গী করে নির্বাচনে যাওয়া ভুল ছিল। বিএনপি জামায়াতকে ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়ন দেবে জানলে তিনি দলটির সঙ্গে জোট করতেন না।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ড. কামাল হোসেন সাহেব জেনেশুনে কেন ভুল করলেন, সেই ভুলের খেসারত তাকেই দিতে হবে। জামায়াতের সঙ্গে বিএনপি জোটের ঐক্য ও নির্বাচন করা নিয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের  বলেন, জামায়াত মানে বিএনপি, বিএনপি মানে জামায়াত।

কামাল হোসেন সাহেব জেনেশুনে কেন ভুল করলেন? তিনি জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে বসা সব দলকে ফের আমন্ত্রণ জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ৩০ ডিসেম্বর ভোটের আগে ঐক্যফ্রন্ট ও যুক্তফ্রন্টসহ ৭৫ রাজনৈতিক দলের সঙ্গে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সংলাপ হয়েছিল। নির্বাচন সফলভাবে শেষ হয়েছে।

ওই সব দলের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুকন্যা ফের কথা বলবেন বলে যানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শনিবার দলের ওয়ার্কিং কমিটি ও উপদেষ্টা পরিষদের সঙ্গে যৌথসভা করেছেন। সেখানে বলেছেন, ভোটের আগে যাদের সঙ্গে সংলাপ হয়েছে— তাদের ফের গণভবনে আমন্ত্রণ জানাবেন। তাদের সঙ্গে মতবিনিময় হবে এবং আপ্যায়নের ব্যবস্থা থাকবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ ব্যাপারে আমরাও সবাই একমত, যারা সংলাপ এসেছিলেন— তাদের আবারও নেত্রী সংলাপে আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন। কবে ডাকা হবে এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, একসঙ্গে সবাইকে দাওয়াত দেয়া হবে। তারিখ খুব শিগগির জানিয়ে দেয়া হবে। সব রাজনৈতিক দল গণভবনে আমন্ত্রিত।

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট। অন্যদিকে মাত্র আটটি আসন পায় ঐক্যফ্রন্ট। তাদের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা এখনও শপথ নেননি। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তাদের শপথ নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, সংলাপে এলে আমরা বিভিন্ন বিষয় আলোচনা করতে পারি।

বিএনপির প্রতি আমাদের অনুরোধটা রিনিউ করতে পারি।   সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, আবদুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক।