দুর্নীতি ও অনিয়ম জানাতে নিজের ফোন নম্বর দিলেন পলক

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৫৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৫৯:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৯
ছবিঃ সংগৃহিত

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক নাটোরের সিংড়া উপজেলার যে কোন অনিয়ম ও দুর্নীতির তথ্য জানিয়ে দুর্নীতি নির্মূলে সহায়তা করার জন্য সকলকে নিজের সেলফোনের নম্বর (০১৭৬৬৬৯৯৯৯৯) দিয়েছেন ।

পরপর দুইবার একই মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়া তরুণ এ মন্ত্রীসভার সদস্য শনিবার বিকেলে সিংড়া কোর্ট মাঠে আয়োজিত এক নাগরিক সভা ও মতবিনিময়ে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ওহিদুর রহমান শেখের সভাপতিত্বে অনান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, সিংড়ার বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, দলীয় সভাপতি-সম্পাদকসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

এর আগে পুনরায় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ায় জুনাইদ আহমেদ পলককে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

সিংড়াবাসীর উদ্দেশ্যে পলক বলেন, ‘আমি একা। অনেক কাজ আছে, একা পারবো না। আপনাদের সহযোগিতা লাগবে। আপনাদের নিয়ে দুর্নীতি নির্মূলে কাজ করতে চাই।’

সিংড়ার সাব-রেজিস্ট্রি অফিস ও পরিবহন সেক্টরে ব্যাপক চাঁদাবাজী ও অর্থ আদায় হয়, মন্তব্য করে পলক বলেন, ‘সিংড়ার সাব-রেজিস্ট্রি অফিস থেকে বিগত এক দশকে একটি টাকাও নিইনি। তবে এক দিনের জন্যও টাকা তোলা বন্ধ করেনি অফিসকেন্দ্রিক চক্রটি।

কোথায় যায় সেই টাকা? পরিবহন সেক্টরে ভ্যান চালক, অটোচালক ও সিএনজি চালকদের নিকট থেকে চাঁদা তোলা হয়। আপনারা ঐক্যবদ্ধ হউন, সিংড়াে থেকে চাঁদাবাজদের উৎখাত করা হবে। পাঁচ জন চাঁদাবাজের কাছে চার লক্ষ সিংড়াবাসী জিম্মি হতে পারে না।’

নিয়োগ বাণিজ্যের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে পলক বলেন, ‘কোন ব্যক্তি এমনকি নিজ দলের কোন নেতা অথবা কর্মী চাকরী দেয়াে নাম করে কারো নিকট থেকে টাকা চাইলে তাকে বেঁধে আমাকে ফোন করবেন। আমার কোন সেকন্ড-ইন-কমান্ড নাই। প্রতিটি নিয়োগ হবে মেধার ভিত্তিতে, ঘুষের টাকায় নয়।’

পলক অভিযোগ করেন, সম্প্রতি সিংড়ার এক ইউনিয়নের নতুন রাস্তা তৈরীতে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে। কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে তা নজরে না এলেও এক তরুণ ফেসবুকে বিষয়টি তাকে অবহিত করেন।

সিডিউলের বাইরে কোন অবকাঠামো নির্মাণ বা রাস্তাঘাট তৈরীর ফলে সেগুলো টেকসই না হলে আগামীতে সংশ্লিষ্টরা জবাবদিহি থেকে রেহাই পাবেন না বলে হুঁশিয়ারী দেন পলক।