‘নার্সারির শিশুদের জ্ঞানের প্রয়োজন আছে, তাই বলে এত জ্ঞান নয়!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮ | আপডেট: ৬:৪৫:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮

টিবিটি সারাবিশ্বঃস্কুলের শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল এই আনন্দ আয়োজন। মা-বাবার সঙ্গেই শিশুরা উপস্থিত হয়েছিল। নাচ-গানসহ শিশুদের আনন্দ দেওয়ার জন্য অনুষ্ঠানে নানা ব্যবস্থা থাকবে—তেমনটাই তো স্বাভাবিক। কিন্তু অনুষ্ঠান শুরু করার একপর্যায়ে বিষম খেলেন মা-বাবারা। স্কুল কর্তৃপক্ষের কাণ্ডজ্ঞানহীন আচরণে ফুঁসে ওঠেন তাঁরা।

অভিভাবকদের ক্ষোভের কারণও আছে। নৈশক্লাবগুলোয় প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য পোল নাচের যে আয়োজন থাকে, সেটাই রাখা হয়েছিল শিশুদের জন্য। ছবিতে দেখা গেছে, মঞ্চে অস্থায়ীভাবে স্থাপন করা একটি পোল নিয়ে স্বল্পবসনার এক নারী নানা ভঙ্গিমায় নেচে চলেছেন।

চীনের ওই কিন্ডারগার্টেন বা নার্সারি স্কুলের অনুষ্ঠানে পোল নৃত্যশিল্পীর নাচ নিয়ে রীতিমতো ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে।

স্থানীয় দৈনিক পত্রিকা সাউদার্ন মেট্রোপলিসের বরাত দিয়ে আজ মঙ্গলবার বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়, চীনের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের আধুনিক শহর শেনজেনের জিনশাহুই কিন্ডারগার্টেন নামের একটি স্কুলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিশু ও অভিভাবকদের আমন্ত্রণ জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে পোল নৃত্যশিল্পীসহ স্বল্পবসনায় শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করেন। ইন্টারনেটে পোল নাচের সেই দৃশ্য ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া শুরু হয়। চীনে জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগ সিনা ওয়েবোতে স্কুলের সেই আয়োজন দেখে অনেকে সমালোচনা করেন, কেউ কেউ বিদ্রূপও করেন।

একজন ওয়েবো ব্যবহারকারী মন্তব্য করেছেন, ‘আমি সত্যিই জানি না, স্কুলের প্রধান শিক্ষক কী ভাবছিলেন।’ আরেকজন লেখেন, ‘এ ধরনের নাচ কিন্ডারগার্টেনের শিশুদের উপযোগী নয়।’

আরেকজন কিছুটা কৌতুক করে লেখেন, ‘নার্সারির শিশুদের জ্ঞানের প্রয়োজন আছে, তাই বলে এত জ্ঞান নয়!’Eprothomalo

অনলাইনে এমন ব্যঙ্গবিদ্রূপ চললেও সাউদার্ন মেট্রোপলিসের খবরে বলা হয়েছে, অনেক অভিভাবক ওই দৃশ্য দেখে ভড়কে যান। তাঁদের শিশুদের ওপর এর দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতিকর প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তাঁরা। অনেকে তাঁদের শিশুদের ওই স্কুলে আর পড়াবেন বলে জানিয়েছেন।

উইচ্যাট মেসেঞ্জারে এক অভিভাবক লিখেছেন, ‘উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যে স্কুল পোল নাচের আয়োজন করতে পারে, সেই স্কুলের শিক্ষকদের মানসিকতা ও রুচিবোধ কী, তা বোঝা যায়।’

আরেক অভিভাবক লিখেছেন, ‘এ ধরনের আয়োজনের ধারণা তাদের কে দিয়েছে? আমরা শিশুদের স্কুল থেকে নিয়ে আসা এবং ভর্তির টাকা ফেরত নেওয়ার চেষ্টা করছি।’

ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়ে স্থানীয় শিক্ষা ব্যুরো স্কুলটিকে ক্ষমা চাইতে ও প্রধান শিক্ষককে বরখাস্ত করতে বলেছে বলে খবরে প্রকাশ করা হয়েছে।