পদ্মায় ইলিশ ধরায় ৩৪ জেলের কারাদন্ড

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৪১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৪১:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮
সংগৃহীত

মঙ্গলবার বিকাল থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত অভিযানে পরিচালনা করে ৪৪ জন জেলেকে আটকের পর ৩০ জনকে ১০ দিন ও ৪ জনকে ১৫ দিন ও ১ জনকে ২ দিন করে কারাদন্ড এবং অন্য ৯ জনকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থ দন্ড ও মুচলেকা দেয়া হয়েছে। এসময় ৭৫ কেজি ইলিশ মাছ ও ৪৫ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।

রাজবাড়ীর পদ্মা নদীতে সরকারী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ ধরার অপরাধে ১৮তম দিনের অভিযানে ৪৪ জন জেলেকে আটকের পর জেল ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। জব্দকৃত মাছ জেলার বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসায় বিতরণ ও কারেন্ট জাল আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে।

ইলিশের প্রজনন মৌসুমে নদীতে ইলিশ মাছ ধরায় এবং সরকারী আদেশ অমান্য ও ইলিশ সংরক্ষণ আইন অমান্য করায় (১৮৮ ধারায়) ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৩০ জন জেলেকে ১০ দিন, ৪ জনকে ১৫ দিন ১ জনকে ২ দিন এবং ৯ জনকে বিভিন্ন অংকে অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়।

বুধবার ১৮তম দিনের এ অভিযানে রাজবাড়ী সদরের, ২০ জনকে ১০ দিন, পাংশায় ৪ জনকে ১৫ দিন ১ জনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা ,কালুখালীতে ৮ থেকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা ও গোয়ালন্দে ১১ জনের মধ্যে ১০ জনকে ১০ দিন ও ১ জনকে ২ দিন কারাদন্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমান আদালত। সেই সাথে ৭৫ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল ও ৪৫ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত মাছ বিভিন্ন মাদ্রাসায় বিতরণ ও কারেন্ট জাল আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়।

রাজবাড়ী সদর, কালুখালী, পাংশায় ও গোয়ালন্দ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহ মো. সজিব সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা, মো. রফিকুল ইসলাম, মো. রুবায়েত হায়াত শিপলু। অভিযানে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মজিনুর রহমান, জেলা প্রশাসন , র‌্যাব , জেলা মৎস্য অধিদপ্তর, উপজেলা মৎস্য অফিস, ও আনসার ব্যাটালিয়ন অংশ গ্রহণ করেন।