পুন:নির্বাচনের দাবি আদায়ে দুই কৌশলে আন্দোলনে যাবে বিএনপি

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১, ২০১৯ | আপডেট: ১১:৫৬:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১, ২০১৯
সংগৃহীত

সোমবার সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাখ্যান করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পুনরায় ভোট দাবি করেছেন।

এর আগে বিকেল থেকে এখানে নির্বাচনে ব্যাপক ভারডুবির পরে করণীয় নির্ধারণে বৈঠক করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা।

বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খোন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘পুনরায় নির্বাচনের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা এই সরকারের ভোট কারচুপির বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলব। একইসঙ্গে আইনের আশ্রয় নেব।’

এ সময় তিনি বেশ কয়েকটি আসনে ভোট কারচুপির দলিল তুলে ধরে বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন একতরফাভাবে সরকারের হয়ে কাজ করেছে।’
Add Image
বিএনপি মহাসচিবের অভিযোগ, ‘আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় যন্ত্রের সবকিছু ব্যবহার করে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ভোট কারচুপি করেছে। ভোটের আগের রাতেই তারা ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করেছে।’

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘বিজয়ের পর সরকার দলের লোকেরা বিরোধীদের বাড়ি বাড়ি হামলা চালাচ্ছে, ভাংচুর ও বাড়িঘর পুড়িয়ে দিচ্ছে।’নির্বাচন নিয়ে বিদেশি পর্যবেক্ষকদের সন্তোষ প্রকাশের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা কোথাও কোনো পর্যবেক্ষক দেখিনি। যারা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন, তাদের কারা পাঠিয়েছে, আমরা জানি না। যারা এসেছিলেন, তারা সরকারের ‘পেইড’ এজেন্ট।’

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত এই নির্বাচন নিয়ে আমেরিকা কিংবা ভারতের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি দেয়া হয়নি।’ যেসব আসনে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন, তারা শপথ নিবেন কি না জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা পুরোপুরিভাবে এই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছি। তাই শপথ নেয়ার কোনো সুযোগ নেই।’