ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহারই নিরাপদ

প্রকাশিত: ১২:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮ | আপডেট: ১২:২৯:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮

জনবহুল শহর ঢাকা। সব মিলিয়ে প্রায় দুই কোটি মানুষের এখানে। আর প্রয়োজনের তাগিদে বহু মানুষকেই যাতায়াত করতে হচ্ছে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায়। ঢাকার ব্যস্ততম রাস্তাগুলোতে তৈরি ফুট ওভারব্রিজগুলো রাস্তা পারাপারে মানুষকে নিরাপত্তা দেয়। কিন্তু অসচেতন হয়ে পথচারীরা অনিরাপদভাবে বাস ও গাড়ির সামনে দিয়েই যেন রাস্তা পারাপারে বেশি আগ্রহী। তাই ওভারব্রিজগুলোও হয়ে আছে অচল। সিটি কর্পোরেশনের তথ্য মতে, ঢাকা শহরের প্রায় দুই কোটি মানুষের জন্য ফুট ওভারব্রিজ রয়েছে ৮৬ টি।

নগর গবেষণা কেন্দ্রের মতে, যার ২৫টি নির্মাণ করেছে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন। কিন্তু এত মানুষের শহরে এই কয়েকটি ওভার ব্রিজ কি যথেষ্ট? যদিও যত গুলো আছে তারও ব্যবহারকারী নেই বললেই চলে। রাজধানীর প্রায় সব ব্যস্ত রাস্তায়ই ওভার ব্রিজগুলো ফাঁকা পড়ে থাকতে দেখা যায়। আর যে রাস্তায় ওভার ব্রিজের সংখ্যা কম সেখানে তো ব্যবহারকারী খুঁজেও পাওয়া যাবে না।

ধানমন্ডি ১৫ নম্বরের ব্যস্ত সড়কে এমনই অবস্থা দেখা যায়। ঝিগাতলা থেকে ধানমন্ডি ২৭ নম্বর পর্যন্ত মাত্র একটি ওভার ব্রিজ রয়েছে। কিন্তু দূর থেকে হেঁটে এসে ব্যবহার তো হয়ই না বরং এর নিচে বাস ও গাড়ির সামনে থেকে দৌঁড়ে রাস্তা পারাপার হতে দেখা গেছে। ধানমন্ডির এই রাস্তায় প্রায় ৯৫ ভাগ মানুষই ওভার ব্রিজটি ব্যবহার করছে না, নেই ট্রাফিক পুলিশের নজরদারিও।

যদিও ঢাকা মেট্রোপলিটন অর্ডিন্যান্স ১৯৭৬ অনুযায়ী, কোনো পথচারী এ আইন অমান্য করলে তাকে আর্থিক দণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে ও দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট এ অপরাধে পথচারীদের গ্রেপ্তারের এখতিয়ারও সংরক্ষণ করেন। কিন্তু ট্রাফিক পুলিশ রহমত বলেন, ‘সবাই তো জানে এই ওভার ব্রিজটি কেন দেয়া হয়েছে কিন্তু কেউই ব্যবহার করছে না। আর স্যাররা না বললে আমি তো বেশি কিছু করতে পারব না। তাই জীবনের ঝুঁকি না নিয়ে ওভার ব্রিজটি দিয়েই রাস্তা পার হওয়া উচিত।’

অন্যদিকে সরেজমিনে দেখা গেছে, তরুণ থেকে শুরু করে বয়স্ক সবাই একই ভাবে রাস্তা পার হচ্ছে। এর কারণ জানতে চাইলে ওই পথচারী বলেন, ‘আমার খুব জরুরি একটি মিটিং আছে তাই এভাবে পার হচ্ছি।’

কিন্তু হিসেব করলে দেখা যাবে ওভারব্রিজটি ব্যবহার করলে তার হয়তো ২ থেকে ৩ মিনিটই বেশি লাগতো। প্রায় আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করার পর ওভারব্রিজটি ব্যবহারকারী দুইজন পাওয়া গেল।

ধানমন্ডির একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রী বলেন, ‘একবার সিটি কলেজের সামনে আমার দুর্ঘটনা হয়, তার পর থেকেই আমি ওভারব্রিজ ব্যবহার শুরু করি। কিন্তু এর আগে আমিও ঝুঁকি নিয়েই রাস্তা পার করতাম। তাই একটু কষ্ট হলেও নিরাপত্তার জন্য আমি ওভারব্রিজই ব্যবহার করি।’

ঢাকা শহরের প্রায় ৩০টি সড়ক দুর্ঘটনা প্রবণ। আর এসব এলাকায় ওভারব্রিজ ব্যবহার না করায় ঘটছে অনেক দুর্ঘটনা। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তথ্য অনুযায়ী ঢাকা শহরে ফুট ওভার ব্রিজ ব্যবহার না করায় বছরে অন্তত ৫৯৭ জন নানা দুর্ঘটনায় শিকার হচ্ছে।

তাই এই দুর্ঘটনাগুলো দূর করতে আর বেশি ওভারব্রিজ নির্মাণসহ তা ব্যবহারে জনগনকেই সচেতন হতে হবে। কারণ নিরাপদ ফুট ওভারব্রিজের ব্যবহারই পারে দুর্ঘটনা বন্ধ করতে।

-বাংলাদেশ জার্নাল।