বিয়ে করতে এসে অস্বীকার, ‘মাথা ন্যাড়া’ হয়ে ফিরতে হলো বাড়ি

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:১৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৮ | আপডেট: ৫:১৭:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৮

বিয়ে করতে এসেছে বর পক্ষ। আর এই বিয়েতে বরের আবদার ছিল শখের একটা বাইক আর গলায় পড়ার জন্য সোনার হার। এটা কি খুব বেশি ছিল? এই দাবি করেই বিপাকে পড়লেন বর। শেষমেশ বিয়ে করতে আসা বরের ‘মাথা ন্যাড়া’ করে দিল গ্রামবাসী।

রবিবার (২১ অক্টোবর) রাতে ভারতের উত্তর প্রদেশের একটি গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বর ও কনে দুই পরিবারের আর্থিক অবস্থা আহামরি নয়। এর পরেও পাত্রের জন্য যতদূর সম্ভব হয়ে তা করেছিল পাত্রী পক্ষ। তাতে মন ভরেনি পাত্রের।

বিবাহিত জীবন একটু রঙীন ভাবেই কাটাতে চেয়েছিলেন তিনি। আর সেটা মেটাতে চেয়েছিলেন শ্বশুর বাড়ি থেকে। পাত্রের এমনটাই আশা ছিল। বিয়ে করার জন্য সব কথা পাকা হয়ে যাওয়ার পরেও দাবি করেছিল একটি মোটরসাইকেল। এখানেই শেষ নয়, সাথে গলায় পড়ার জন্য একটি সোনার চেন চেয়েছিল সে।

কিন্তু, এই আশা যে অভিশাপ হয়ে দাঁড়াবে তা কল্পনাতেও ভাবেনি বর। শ্বশুর বাড়ি থেকে তার সব দাবি গুলো মেনে নেয়া হবে বলে জানানো হয়। কিন্তু, বরের তা বিশ্বাস হয়নি। এ কারণে পাত্র সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন, মোটরসাইকেল আর সোনার চেন না পেলে তিনি কিছুতেই বিয়ে করবেন না।

ব্যস, এখানেই ঘটে ঘোর বিপত্তি। শুরু হয়ে যায় কথা কাটাকাটি। একপর্যায়ে যা হাতাহাতির আকার নেয়। এরই মাঝে বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত লোকজন রাগে-ক্ষোভে ক্ষুর দিয়ে মাথা ন্যাড়া করে দেয় বরের। তাও আবার সম্পূর্ণ মাথা নয়। মাথার মাঝের দিকের অংশটা। যা কিনা অত্যন্ত লজ্জার এবং অপমানজনক।

বিয়ে করতে এসে এমন পরিস্থিতিতে পড়বেন একবারের জন্যও কল্পনা করতে পারেননি তিনি।

এ বিষয়ে পাত্রীর ঠাকুমা বলেছেন, ‘বিয়ের ৫ দিন আগে ছেলে বলছে আমার গাড়ি চাই, সোনার চেন চাই। আমরা দিতে পারব না বলেছিলাম বলে ছেলে বলল বিয়ে করবে না।’

পাত্রীর ঠাকুমা জানিয়েছেন, ভিড়ের মধ্যে কে পাত্রের ‘মাথা ন্যাড়া’ করে দিয়েছে তা তিনি জানেন না।