বিশ্বকাপের আগে একের পর এক চোটের ধাক্কা ভাবাচ্ছে বিসিবিকে

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০১৮ | আপডেট: ১০:৩৬:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০১৮

এশিয়া কাপ থেকে ফিরে বাংলাদেশ দলনেতা মাশরাফি বিন মুর্তজা তো জানিয়েই দিলেন, এশিয়া কাপ থেকেই শুরু বিশ্বকাপ প্রস্তুতি। কিন্তু এই প্রস্তুতির ভেতরই রয়েছে চোটের ধাক্কা। এই চোটের ছোঁয়া লেগেছে বাংলাদেশ দলের পঞ্চপাণ্ডব খ্যাত সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ আর মাশরাফির গায়ে।

সাকিব বাঁ হাতের কনিষ্ঠা নিয়ে ভুগছে গত ১০ মাস ধরেই। তামিমেরও আঙুলের চোটের সঙ্গে যোগ হয়েছে কব্জির চোট। মুশফিকের ব্যথা পাঁজরের আট নম্বর হাড়ে। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের কোমরে ব্যথা এখনও পুরোপুরি ঠিক না হলেও তিনি আশা করছেন জিম্বাবুয়ে সিরিজের আগে যে ক’দিন বিশ্রামে আছেন তাতে ঠিক হয়ে যাবে।

বাকি রইলো মাশরাফি বিন মুর্তজা। তিনিও ডান হাতের কনিষ্ঠার ব্যথা নিয়ে খেলেছেন এশিয়া কাপের ফাইনাল ম্যাচ। ফাইনাল ম্যাচে আবার উরুতে বল লাগায় সেখানেও জমে গেছে রক্ত। সব মিলে তিনিও বইছেন ব্যথা।

সাকিব আল হাসান এরইমধ্যে চলে গেছেন অস্ট্রেলিয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য। তামিমও লন্ডনে ডাক্তার দেখিয়ে ফিরেছেন দেশে। আপাতত তার হাতে লাগছে না অস্ত্রোপচার। বিশ্রামে আছেন মুশফিক আর মাহমুদুল্লাহ। মাশরাফি নিয়মিত শরণাপন্ন হচ্ছেন বিসিবি’র চিকিৎসকের কাছে।
তাই জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলা নিয়ে শঙ্কা আছে ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি আর মুশফিকের। এই সিরিজে খেললে যদি ব্যথাটা আবার বেড়ে যায়?

ধরা যাক, মাশরাফি, মুশফিক, রিয়াদ খেললেন জিম্বাবুয়ে আর ওয়েস্টইন্ডিজ সিরিজে কিন্তু সাকিব-তামিমের ব্যাপারে কি হবে? চোট থেকে পূনর্বাসনে ফিরেই কি খেলার জন্য উপযোগী হয়ে যাবেন দুজন? এমন প্রশ্ন থেকেই যায়। তবে এই ব্যাপার নিয়ে এখন থেকেই ভাবছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

এ নিয়ে আজ শনিবার গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির ম্যানেজার আকরাম খান।

আকরাম খান বলেন, চোটের ব্যপার নিয়ে অনেক আগ থেকেই আমরা আলোচনা করেছি। জাতীয় দল আর পাইপ লাইনে থাকা প্রায় ১৫ জনের মতো খেলোয়াড় রয়েছে ইনজুরিতে। এই ব্যাপারটা আমাদের ভাবাচ্ছে। তবে তিনি এই সমস্যা থেকে উত্তরণের কথাও শোনান।

‘সাকিব-তামিমের ঠিক হতে একটু সময় লাগলেও আশা করি বাকিরা সুস্থ হয়ে যাবে দ্রুত সময়েই। তাদের নিয়েও আমরা প্ল্যান করে রেখেছি। আশা করি সব পক্ষে থাকবে।’

আকরাম খান আলাদা করে বলেন সাকিব-তামিমকে নিয়েও। তারা কি চোট থেকে ফিরেই সেরাটা দিতে পারবে কি না।

‘আমরা ওদেরকে সব রকম সুবিধা দিতে প্রস্তুত আছি। আশা করি তারা সঠিক সময়েই ঠিক হয়ে দলে ফিরবে। কিন্তু চোটের বিষয়টা তো আর বলে কয়ে আসে না তাই এই দিকটাও খেয়াল রাখতে হবে সবার।’