‘বিশ্বকাপে ইচ্ছে করেই খারাপ খেলেছে আফগানরা’

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:০৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০১৯ | আপডেট: ৭:০৩:অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০১৯

সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপে দলের বাজে পারফর্মেন্স এবং জঘন্য ক্যাপ্টেন্সির জন্য অধিনায়কত্ব হারিয়েছেন গুলবাদিন নাইব। গোটা টুর্নামেন্টে একটি ম্যাচও জিতেনি আফগানিস্তান। তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন রশিদ খান। এত দিন পর এবার মুখ খুলেছেন সাবেক আফগান অধিনায়ক। তার বক্তব্য, বিশ্বকাপে ইচ্ছা করেই খারাপ খেলেছে দলের সিনিয়র খেলোয়াড়ররা। ম্যাচ হারের পর ড্রেসিংরুমে এসে নাকি সবাই হাসাহাসিতে মেতে উঠতেন।

গুলবাদিন বলেন, সিনিয়রদের পারফরম্যান্সের ওপর আফগানিস্তান দল নির্ভরশীল। কিন্তু এই সিনিয়ররাই বিশ্বকাপে ইচ্ছে করে খারাপ খেলেছে। যার প্রভাব পড়েছে দলের ফলাফলের ওপর।

আফগানিস্তানের একটি স্থানীয় পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে গুলবাদিন নাইব আরও বলেন, দলের সিনিয়র ক্রিকেটাররা আমার কথার কোনো গুরুত্ব দিত না। ম্যাচ হেরে তারা দুঃখিত না হয়ে ড্রেসিংরুমে হাসাহাসি করত! ম্যাচের মধ্যে আমি যখন তাদের কোনো নির্দেশনা দিতাম, তখন তারা আমার দিকে তাকাতই না!

প্রসঙ্গত, বিশ্বকাপের আগে হঠাৎ করেই সফল অধিনায়ক আসগর আফগানকে সরিয়ে নেতৃত্ব দেয়া হয় গুলবাদিন নাইবকে। ক্রিকেট বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানান সিনিয়র ক্রিকেটার মোহাম্মদ নবী ও রশিদ খানরা। কিন্তু তাদের প্রতিবাদে কোনো কর্ণপাত করেনি বোর্ড।

শুধু তাই নয়! বিশ্বকাপে আফগান সেরা ওপেনার মোহাম্মদ শেহজাদকে মাত্র দুই ম্যাচ খেলিয়ে ইনজুরির অজুহাত দিয়ে বসিয়ে রাখা হয়। দলের সেরা ক্রিকেটার আসগর আফগানকে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেয়ার পাশাপাশি দল থেকেও বাদ দেয়া হয়। প্রথম তিন ম্যাচে বসিয়ে রাখা হয় তাকে।

বিশ্বকাপে নয় ম্যাচে টানা হেরে যাওয়ায় গুলবাদিন নাইবকে সরিয়ে টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টির জন্য আফগানিস্তানের নতুন অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে রশিদ খানকে।