বৈঠকে ইরান-রাশিয়া-তুরস্ক

প্রকাশিত: ৩:৫৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৫৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮

ইরানের বাজধানী তেহরানে ইরান, রাশিয়া ও তুরস্কের মধ্যে শীর্ষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইরানের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকচি।

এ বৈঠকে অংশ নেবেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান ।

বৈঠকে সিরিয়া পরিস্তিতি নিয়ে আলোচনা করা হবে ।

এদিকে, সিরিয়া পরিস্থিতি এখন স্পর্শকাতর অবস্থানে এসে পৌঁছেছে। যুদ্ধ পরবর্তী সিরিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য চেষ্টা চলছে।

আমেরিকার চাপ সত্বেও ইরান সিরিয়াকে সমর্থন দেয়া সর্বাত্মক সহযোগিতা বজায় রেখেছে এবং এ অঞ্চলের প্রতিরোধ যোদ্ধাদের প্রতি সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে।

নিরাপত্তাগত কারণে ভূ-রাজনৈতিক দিক থেকে ইরাক ও সিরিয়ার গুরুত্ব ইরানের কাছে অনেক বেশি। এই দুই দেশ যদি পাশ্চাত্য ও কয়েকটি আরব দেশের সমর্থনপুষ্ট তাকফিরি সন্ত্রাসীদের দখলে চলে যায় তাহলে ইরানসহ এ অঞ্চলের দেশগুলোর অপূরণীয় ক্ষতি হবে।

এ ক্ষতির বিষয়টিকে দু’দিক থেকে মূল্যায়ন করা যায়।

প্রথমত, ইরানসহ এ অঞ্চলের প্রতিরোধ শক্তিগুলোকে দুর্বল করা পাশ্চাত্য ও তাদের মিত্রদের প্রধান উদ্দেশ্য।

তাদের দ্বিতীয় উদ্দেশ্য, জাতীয়তার ভিত্তিতে এ অঞ্চলের মুসলিম দেশগুলোকে বিভক্ত করে দখলদার ইসরাইলের অবস্থানকে শক্তিশালী করা।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ এ ব্যাপারে বলেছেন, সিরিয়া বিষয়ে তেহরানে অনুষ্ঠেয় শীর্ষ বৈঠকের অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে, কোনো রকম প্রাণহানি ছাড়াই ইদলিব থেকে সন্ত্রাসীদেরকে হটিয়ে দেয়া।

ইরানের নূর গবেষণা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ড. আসাদুল্লাহ যারেঈ মনে করেন, “বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্যে ইরান অত্যন্ত শক্তিশালী অবস্থানে এসে দাঁড়িয়েছে এবং কোনো কিছুই ইরানকে তার অবস্থান থেকে সরাতে পারবে না। এ ছাড়া, ভূ-কৌশলগত দিক থেকেও ইরান বিশেষ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে।”