ভাঙ্গা উপজেলার ছাত্রলীগ সভাপতি অস্ত্র ও ইয়াবাসহ আটক

প্রকাশিত: ২:৩৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০১৯ | আপডেট: ২:৩৭:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০১৯
ছবি: সংগৃহিত

ভাঙ্গা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি লুৎফর রহমান মোল্যা (৩২) দুই রাউন্ড গুলিভর্তি একটি বিদেশী পিস্তল ও ২শ’ পিস ইয়াবাসহ আটক করেছে ভাঙ্গা উপজেলা পুলিশ। সোমবার রাতে ভাঙ্গার চালপট্টি থেকে ডিবি পুলিশে আটক করে তাকে।

ফরিদপুরের এএসপি রবিউল ইসলাম বলেন, মাদক বিক্রির গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার দিবাগত রাত ৯টায় চালপট্টি থেকে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি লুৎফর রহমান মোল্যাকে আটক করা হয়। এসময় তার প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো- ম-০০-০৪৩৪) এর সিটের নিচে লুকিয়ে রাখা ২শ’ পিস ইয়াবা, ২ রাউন্ড গুলি ও একটি বিদেশী পিস্তল সহ গ্রেফতার করা হয়।

এএসপি আরো বলেন, রাতেই লুৎফরকে ফদিপুরের ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে নেয়া হয়। তাকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। এ ঘটনায় মাদক ও অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। ফরিদপুর ডিবি পুলিশের ওসি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বড় ধরনের ইয়াবা ও অস্ত্র বেচা-কেনা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া যায়,এমন সংবাদের ভিত্তিতে ভাঙ্গা বাজারে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র, ইয়াবা ও একটি প্রাইভেটকারসহ লুৎফর রহমান মোল্যাকে আটক করতে সক্ষম হই।

দিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের একটি সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন যাবত ছাত্রলীগ সভাপতি লুৎফর এলাকায় প্রকাশ্যে ইয়াবা ও ফেনসিডিল বেচা-কেনাসহ মাদক ব্যবসা করে আসছিলো বলে এলাকাবসীর নিকট থেকে অভিযোগ আনা হয়। এ কারণে নির্বাচন ও পরবর্তী সময়ে লুৎফরকে ধরতে বিভিন্ন বাহিনী তাকে নজরে রাখতে হত বলেন। অবশেষে সোমবার রাতে ডিবি পুলিশের হাতে অস্ত্র ও ইয়াবা বিক্রির সময়ে তাকে হাতে নাতে আটক করা হয়।

ভাঙ্গা উপজেলার কাপুড়িয়া সদরদী এলাকার মোহরার মৃত গিয়াসউদ্দিন মোল্যার ছেলে লুৎফর মোল্যা ভাঙ্গা কেএম কলেজের ছাত্র ছিলো। তবে সে উচ্চ মাধ্যমিকের গন্ডিও পেরোতে পারেনি বলে জানা গেছে।স্থানীয়দের অভিযোগ, তার বিরুদ্বে নিরীহ মানুষকে নির্যাতন ও অত্যাচার, ফ্লাট দখল, জায়গা দখলসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।