মদ্যপ অবস্থায় ধরলেন বাজি। ৮ ইঞ্চির চামচ আটকে গেল খাদ্যনালীতে!

প্রকাশিত: ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৩৪:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০১৮
খাদ্যনালীতে আটকে চামচ। ছবি: জিংজিয়াং মেইকুয়াং জেনারেল হসপিটাল

মাতাল হয়ে বাজি লড়তে গিয়ে বিপত্তিতে পড়লেন চিনের এক ব্যক্তি। তার পরের কাণ্ড আরও ভয়ানক।

মদ খেয়ে বন্ধুদের সঙ্গে বাজি লড়েছিলেন। স্টান্ট দেখাতে গিয়ে আস্ত একটি স্টিলের চামচ খেয়ে ফেলেন তিনি। খাদ্যনালীতে আটকে যায় সেটি। আর এক বছর ধরে ৮ ইঞ্চির চামচ খাদ্যনালীতে নিয়ে কাটিয়েও দিলেন তিনি। বছর খানেক পরে শুরু বিপত্তির।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘অডিটিসেন্ট্রাল.কম’-এর একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, চিনের জিংজিয়াং প্রদেশের জনৈক ব্যক্তি সেখানকার মেইকুয়াং জেনারেল হসপিটালে হাজির হয়েছিলেন খাদ্যনালীতে চামচ নিয়ে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, প্রথমে বছর খানেক তেমন কোনও অসুবিধা হয়নি ওই ব্যক্তির। খেতেও পারছিলেন। শ্বাস-প্রশ্বাসেও কোনও অসুবিধা হয়নি। চিকিৎসকের সাহায্য ছাড়াই কাটিয়ে দেন তিনি। কিন্তু একদিন হঠাৎ করে বুকের কাছে চাপ অনুভব করেন তিনি। সঙ্গে শুরু হয় অস্বাভাবিক যন্ত্রণা। কিন্তু সেই ব্যক্তি হাসাপাতালে গিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই বলেন আমার খাদ্যনালীতে চামচ আটকে রয়েছে।

‘‘আমি তো হতবাক হয়ে গিয়েছিলাম। আমি কোনওদিন এমন রোগী পাইনি,’’ বলছেন চিকিৎসক ইউ ঝিইউ। হাসাপাতালের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ওই ব্যক্তি যখন তাঁদের কাছে আসেন তখন তাঁর খাদ্যনালীতে সংক্রমণ হয়ে গিয়েছে।

সেই চামচ! ছবি: জিংজিয়াং মেইকুয়াং জেনারেল হসপিটাল

চিকিৎসকরা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে ঠিক করেন, লোকাল অ্যানাস্থেশিয়া করে চামচটি বের করা হবে মুখ দিয়েই। সেই ভাবেই দু’ঘণ্টার চেষ্টায় চামচটি বের করে চিকিৎসক দল।

জিংজিয়াং মেইকুয়াং জেনারেল হসপিটালের তরফে জানানো হয়েছে, ওই ব্যক্তি ভাল আছেন এবং খুব দ্রুত তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

তবে এমন ঘটনা প্রথম নয়, ২০১৫ সালে তাড়াতাড়ি চাউমিন খেতে গিয়ে এক মহিলা ৬ ইঞ্চির চামচ গিলে ফেলেন।

-জি নিউজ।