মাতাল পাখির উপদ্রবে বিরক্ত শহরবাসী

প্রকাশিত: ৭:২৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৭, ২০১৮ | আপডেট: ৭:২৭:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৭, ২০১৮
ছবি: ওয়াশিংটন পোস্ট

মাতালের উপদ্রবে একেবারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে মিনেসোটার গিলবার্ট শহরবাসী! বেসামাল হয়ে কখনো মাঝরাস্তায় গাড়ির সামনে চলে আসছে তারা, কখনো আবার বাড়ির জানালায় ধাক্কা লাগছে। কিন্তু পুলিশ ডেকেও লাভ নেই। সবটাই হাতের বাইরে। এ তো আর এলাকার অল্পবয়সিদের কাণ্ডকারখানা নয়। মাতলামিতে অভিযুক্ত সবাই নিরীহ পাখি।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, একের পর এক অভিযোগ আসছে তাদের কাছে। দুর্ঘটনায় বহু পাখির মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ সাফ জানিয়েছে, কিছুই করার নেই তাদের।

পুলিশের পক্ষ থেকে আরো জানানো হয়েছে, এ বছর সময়ের একটু আগেই বরফ পড়েছে। তাতেই বেরি জাতীয় এক ধরনের ফল পচে ফার্মেন্টেশন হয়ে গেছে। ওই ফল খেয়ে মাতাল হয়ে গেছে পাখিরা।

মৃত পাখির ময়নাতদন্তে দেখা গেছে, ওই পাখিগুলোর পেটে বেরি ফল মিলেছে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, ফলের মধ্যে থাকা মাত্রাতিরিক্ত ইথানলের জেরে মৃত্যু হয়েছে পাখিগুলোর।

প্রতি বছর এই দৃশ্যের দেখা মেলে না, কারণ বরফ পড়ার সময় আসতে আসতে গিলবার্টের পাখিরা দক্ষিণে উড়ে যায়। কিন্তু পরিযায়ীদের এখনো যাওয়ার সময় হয়নি, তার আগেই বরফ পড়তে শুরু করেছে এ বছর।

পুলিশ বলছে, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার কোনো প্রয়োজন নেই। কিছু দিনের মধ্যেই সব ঠিক হয়ে যাবে।

কিন্তু এ আশ্বাসে আতঙ্ক কাটছে না বাসিন্দাদের। ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন সব অভিজ্ঞতা। এক নারী জানিয়েছেন, এক দিন বাড়ির পিছনের বাগানে তিনটি পাখির মৃতদেহ পান তিনি।

আরেকজন লিখেছেন, গত এক সপ্তাহে আমার গাড়ি অন্তত ৭টি পাখিকে ধাক্কা মেরেছে! ব্রেক কষলেও আর কিছু করার ছিল না। ওরা সোজা এসে গাড়ির উইন্ডশিল্ডে ধাক্কা মারে।

একজনের মন্তব্য, যে কোনো দিন সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে পাখিরা।