মাদকাসক্ত নিরাময়ের নামে নির্যাতন, খেলনা পিস্তলসহ আটক ১

আলহাজ হোসেন আলহাজ হোসেন

কালিয়াকৈর(গাজীপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৫:৪৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯ | আপডেট: ৫:৪৫:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চা বাগান এলাকায় সরকার অনুমোদনহীন “নতুন জীবন” নামে একটি মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসার নামে রোগীদের নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। নিরাময় কেন্দ্রের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ১২জন মাদকাসক্ত রোগী ওই কেন্দ্রে ভাংচুর চালিয়ে পালিয়ে গেছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সরকারী অনুমোদন না নিয়ে উপজেলার গলাচিপা এলাকার আতিকুল ইসলাম রিপন “নতুন জীবন” নামে চা বাগান এলাকায় মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্র গড়ে তুলে। রাত হলেই সেখানে মাদক ব্যবসা সহ নানা অপকর্ম। বিভিন্ন রোগীদের স্বজনদের নিকট থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে রোগী ভর্তি করে। পরে তারা রোগীদের উপর চিকিৎসার নামে চালায় অমানবিক নির্যাতন।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে “নতুন জীবন” মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ১২জন মাদকাসক্ত রোগী ওই কেন্দ্রে ভাংচুর চালিয়ে পালিয়ে যায়। পরে পালিয়ে যাওয়া মনির হোসেন নামে এক যুবককে খেলনা পিস্তলসহ বড়ইবাড়ি এলাকার লোকজন আটক করে এবং ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করলে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ গিয়ে তাকে থানায় নিয়ে আসে। আটককৃত মনির হোসেন উপজেলার বড়ইবাড়ি এলাকার বেড়িচালা গ্রামের হেদায়েত উল্লার ছেলে।

আটককৃত মনির হোসেন জানায়, মাদক নিরাময় কেন্দ্রে হাত-পা বেঁেধ মারধরসহ নানা ভাবে নির্যাতন করা হতো। নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে আমরা ১২জন রোগী ঐক্যবদ্ধ হয়ে ওই কেন্দ্র থেকে বেরিয়ে আসি। এছাড়া কেন্দ্র পরিচালক নিজেই মাদকাসক্ত বলে উল্লেখ করেন তিনি।

নতুন জীবন মাদক নিরাময় কেন্দ্রের পরিচালক আতিকুল ইসলাম রিপন জানান, দুলাল ও খোকন দুই মাদকসেবী অতর্কিত হামলা চালিয়ে মনিরসহ ১২ জন রোগীকে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে গেছে। তবে এ প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স না থাকলেও যাবতীয় কাগজপত্র মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরে জমা দিয়েছি।

কালিয়াকৈর থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আবুল কাশেম জানান, মাদক নিরাময় কেন্দ্রের পক্ষ থেকে মাদকসেবী বেরিয়ে যাওয়ার বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।