রাজশাহীতে আসামি ছাড়াতে গিয়ে আ’লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:৫৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৫৪:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮
প্রতিকী ছবি

রাজশাহীর পুঠিয়া থানা চত্বরে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আসামি ছাড়িয়ে নেয়াকে কেন্দ্র করে সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। পরে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে দুই পক্ষকে সরিয়ে দেয়।

এ ঘটনায় রাজশাহী-৫ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ডা. মনসুর রহমান ও বর্তমান সংসদ সদস্য আবদুল ওয়াদুদ দারার সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুঠিয়া পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার রহিম কনক বলেন, পৌরসভা মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি বর্তমান সংসদ আব্দুল ওয়াদুদ দারার কাছের লোক। এবার দারা দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় মেয়র দলীয় প্রার্থী ডা. মনসুর রহমানের পক্ষে কাজ করেনি।

নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী জিতলেও মেয়রের নিজ এলাকা গন্ডগোহালী ভোটকেন্দ্রে হেরে যান। এ ঘটনায় রাতে মেয়রের বাড়িতে ককটেল নিক্ষেপ করে দুর্বৃত্তরা।

মেয়রের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রতিবেশী অতিউর রহমান (৪৫) ও তার ছেলে লিমনকে আটক করে পুলিশ। তাদের ছাড়িয়ে নিতে দুপুরের দিকে থানায় আসেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ডা. মনসুর রহমানের কাছের লোক আহসান-উল হক মাসুদ। খবর পেয়ে দলবল নিয়ে মেয়রও পৌঁছান থানায়। পরে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে থানার ভেতরেই সংঘর্ষে জড়ায় দুই পক্ষ।

Add Image

মেয়র রবিউল ইসলাম রবির অভিযোগ, জামায়াত-বিএনপির লোকজন নিয়ে আহসান উল হক মাসুদ আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছেন। এতে তার পরিবারের ৬/৭ জন সদস্য আহত হয়েছেন। হামলাকারীরা তার গাড়ি ভাঙচুর করেছে বলেও অভিযোগ করেন রবি।

অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান উল হক মাসুদ দাবি করেন, পারিবারিক শত্রুতার জেরে মেয়র রবি প্রতিবেশী ও তার ছেলেকে পুলিশে দেন। খবর পেয়ে তিনি তাদের ছাড়িয়ে নিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু মেয়র দলবল নিয়ে হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকজনকে আহত করেছেন।

এ বিষয়ে পুঠিয়ায় থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দীন আহম্মদ বলেন, হঠাৎ করে থানার ভেতরে দু’গ্রুপের মধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে। নির্দেশ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।