রাবিতে টাঙ্গাইল জেলা সমিতির নবীন বরণ, বিদায় ও বৃত্তি প্রদান

মুজাহিদ হোসেন মুজাহিদ হোসেন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯:০৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯ | আপডেট: ৯:০৯:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

বর্ণাঢ্য আয়োজনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) অধ্যয়নরত টাঙ্গাইল জেলার শিক্ষার্থীদের নিয়ে নবীনবরণ, প্রবীনবিদায় ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে। টাঙ্গাইল জেলা সমিতির (টাজেস) উদ্যোগে এ আয়োজনের উদ্বোধন করেন রাজশাহী-৩ আসনের সাংসদ মো. আয়েন উদ্দিন।

শনিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (টিএসসিসি) এ আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। এতে টাঙ্গাইলের প্রায় তিনশতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা টাঙ্গাইল সদর আসনের সাংসদ আলহাজ্জ ছানোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, দেশে এখন আর তেমন দারিদ্রতা নেই। মানুষ এখন শিক্ষা-দীক্ষায় সুযোগ সুবিধা চায়। তারই প্রেক্ষিতে টাঙ্গাইলে একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে এর উদ্বোধন করা হবে। ১২ টি উপজেলার মানুষ নিয়ে আমরা সামনে এগিয়ে যেতে চাই। এজন্য সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, এবারও যারা ভর্তি হয়েছ তাদেরকে নতুন এ জীবনে আমি স্বাগতম জানাচ্ছি। আর যারা পড়াশোনা শেষ করে বিদায় নিচ্ছো তাদেরকেও পরবর্তী ধাপের জন্য শুভকামনা। তোমাদের সকলের সহযোগিতায় যা কিছু করা প্রয়োজন আমি আমার সাধ্যমত চেষ্টা করবো।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল-৮ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম। যে কোন ধরনের প্রয়োজনে সহায়তার আশ্বাস দিয়ে বলেন, আমি আমার সাধ্যমত সহায়তা করবো। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সুবিধার জন্য আমি প্রয়োজনে বাস মালিক সমিতির সঙ্গে কথা বলবো। জেলা সমিতির উদ্যোগে আগামীতে প্রকাশনা বের করা হবে। সে কাজের ব্যায়ভার বহন করবো।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সভাপতি ও টাজেস এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কলা অনুষদের অধিকর্তা অধ্যাপক ফজলুল হক।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ফজলুল হক বলেন, জেলা সমিতির মূল উদ্দেশ্য একে অপরের সাথে পরিচিত হওয়া। শিক্ষার্থীদের মাঝে যারা দরিদ্র ও মেধাবী তাদের সাথে জনপ্রতিনিধি ও শিক্ষকদের মিলিত করা। যাতে তাদের সমস্যায় জনপ্রতিনিধি ও শিক্ষকগণ সহায়তা করতে পারেন। এবছর শীতকালে টাঙ্গাইল জেলার সাবেক শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি পুনঃমিলনী আয়োজন করা হবে বলে জানান তিনি। বক্তব্য প্রদান শেষে টাজেস এর সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. জি.এম. শফিউর রহমান অতিথিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

এর আগে, বিকেল সাড়ে ৪টায় অতিথিদের আসন গ্রহণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর অতিথিদের বরণ, পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ, অতিথিদের বরণ করে নেয় আয়োজকরা। অনুষ্ঠানে নবীন ও প্রবীণ শিক্ষার্থীদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ ও বিদায় জানানো হয়। এছাড়াও সন্ধ্যায় সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের টাঙ্গাইল জেলা সমিতির উদ্যোগে প্রতিবছর নবীনদের বরণ ও যথাযোগ্য মর্যাদায় প্রবীণদের বিদায় দেওয়া হয়। এবছর প্রথমবারের মতো জেলার দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে টাজেস থেকে এককালীন বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, জামালপুর জেলা ও দায়রা জজ মো. সাইফুল ইসলাম, এলেঙ্গা পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নূর-এ-আলম সিদ্দিকী, রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহিদুল ইসলাম রুবেল, টাঙ্গাইল জেলা অ্যাডভোকেট বার সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মঈদুল ইসলাম শিশির,আপন এগ্রো প্রজেক্টের পরিচালক মো. হারুন-অর-রশিদ এবং টাঙ্গাইল জেলা পরিষদ সদস্য খন্দকার কামরুল হাসান প্রমুখ।