‘রাশিয়ায় কেউ হামলা করলে, তারা পুরোপুরি ধ্বংস হবে’

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:১১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০১৮ | আপডেট: ১১:১১:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০১৮

কারও হামলার জবাবে রাশিয়া পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করতে দ্বিধা করবে না বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তবে রাশিয়ার কখনোই আগ বাড়িয়ে পরমাণু হামলা করবে না বলেও জানান তিনি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে আগ্রহী বলেও জানান পুতিন। একইদিন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ন্যাটো জোট রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে জড়ানোর মতো দুঃসাহস দেখাবে না।

বৃহস্পতিবার রাশিয়ার সোচিতে ইন্টারন্যাশনাল পলিসি ফোরামে দীর্ঘ বক্তব্য রাখেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বিভিন্ন বিষয়ে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করার পাশাপাশি তিনি বলেন, যে কোনো হামলা মোকাবিলার সক্ষমতা আছে মস্কোর। রাশিয়ায় কেউ হামলা করলে, তারা পুরোপুরি ধ্বংস হবে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

রাশিয়া প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, ‘পারমাণবিক যুদ্ধ অবশ্যই ভয়ঙ্কর। আমার পরামাণু অস্ত্রের ব্যাবহার উসকে দিতে চাই না। তবে হ্যাঁ, নিজেদের প্রতিরক্ষা জন্য আমরা যে কোন কিছু করতে প্রস্তুত। কেউ যদি রাশিয়ায় হামলা করার মতো ভুল করে, তাহলে তারা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাবে।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়েও স্পষ্ট করেন রুশ প্রেসিডেন্ট। যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে আগ্রহী বলেও জানান তিনি।

রাশিয়া প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে সংলাপের সময় আমি দেখেছি তিনি অনেক আন্তরিক। ট্রাম্প চান রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক দৃঢ় করতে। আর কিছু বিষয়ে দ্বিমত থাকাটাই স্বাভাবিক। অন্য যেকোন দেশের নেতাদের সঙ্গে সংলাপের সময়ও কিছু বিষয় থাকে, যেখানে আমরা ঐকমত্যে পৌঁছাতে পারি না।’

এদিকে রুশ সীমান্তের কাছে স্ক্যান্ডিনেভিয়া অঞ্চলে আগামী ২৫শে অক্টোবর থেকে সামরিক মহড়া শুরু করবে ন্যাটো জোট। এতে অংশ নেবে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের ৫০ হাজারের বেশি সেনা। মহড়ায় শতাধিক যুদ্ধবিমান এবং যুদ্ধজাহাজেরও অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

একে নিজেদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি মনে করছে রাশিয়া। এ বিষয়ে সংবাদ সংস্থা আরটিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে, রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ সতর্ক করে বলেন, ন্যাটো এমন কোন কাজ করবে না যার মাধ্যমে নতুন করে সঙ্কটের সৃষ্টি হয়।

রাশিয়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, ‘আমি মনে করি ন্যাটো জোটের নেতারা অনেক বেশি বিজ্ঞ। তারা এমন কোন কাজ করবেন না, যার মাধ্যমে রুশ সামরিক বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘাতে জড়িয়ে পড়ার মতো ঝুঁকি দেখা দেয়। তবে তাদের সাম্প্রতিক কার্যক্রম দেখে মনে হচ্ছে, তারা মস্কোর সঙ্গে সংঘাতে জড়াতে চায়।’

ন্যাটোর সব সদস্যকে যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র হিসেবে উল্লেখ করে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন, ওয়াশিংটনের ইচ্ছে অনুযায়ীই ন্যাটো সব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।