শাহজাদপুরে ‘উপজেলা চেয়ারম্যান’ পদে আলোচনার শীর্ষে মুস্তাক আহমেদ

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চায়ের কাপে ঝড়

প্রকাশিত: ৯:২১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০১৯ | আপডেট: ৯:২৩:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০১৯
শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) : প্রফেসর মোহাম্মদ আজাদ রহমান (বাঁয়ে) ও মোস্তাক আহমেদ (ডানে)

জেলহক হোসাইন, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরব হয়ে উঠেছে সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার রাজনৈতিক অঙ্গন। গ্রাম থেকে শহরে সর্বত্রই চলছে আলোচনা, উঠছে চায়ের কাপে ঝড়।

জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ হতে না হতেই আবার সর্বত্রই আলোচনার কেন্দ্র হিসেবে দাড়িয়েছে আগামী উপজেলা নির্বাচনে শাহজাদপুরে কে কোন দল থেকে পাচ্ছেন মনোনয়ন। বিশেষ করে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে কে হচ্ছেন দলীয় প্রার্থী এ নিয়ে চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সর্বত্র চলছে নানান জল্পনা কল্পনা। সেই সাথে চলছে রাজনৈতিক মহলে নানা হিসাব নিকাশ।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ভাষ্য অনুযায়ী আগামী ফেব্রæয়ারী মাসে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করার কথা। এ নিয়ে নবীন ও প্রবীণ সম্ভাব্য প্রার্থীরা শুরু করেছে নিজেদের প্রচার প্রচারণা। এ সকল সম্ভাব্য প্রার্থীদের সমর্থকেরা ফেসবুক সহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন হাট, বাজার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থান পোষ্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে ছেয়ে গেছে।

উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে আলোচনায় বিভিন্ন জনের নাম আসলেও আলোচনার কেন্দ্র হিসেবে সবার শীর্ষে রয়েছে ক্লিন ইমেজখ্যাত তৃণমূলের পরীক্ষিত নেতা ও বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুস্তাক আহমেদ। তিনি প্রায় চার দশক ধরে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। আওয়ামীলীগের অন্যতম অঙ্গসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শাহজাদপুর উপজেলা শাখার সভাপতি সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দ্বায়িত্বপালন করেছেন দীর্ঘদিন। বর্তমানে তিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দক্ষতার সাথে দ্বায়িত্বপালন করে আসছেন।

এছাড়াও তিনি নিমমিত প্রকাশিত স্থানীয় পত্রিকা সাপ্তাহিক প্রান্তিক সংবাদের সম্পাদক ও প্রকাশক হিসেবে দ্বায়িত্বপালন করায় চিন্তাশীল মানুষদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছেন ব্যাপক। ৯০ এর গণআন্দোলনের শাহজাদপুরের নেতৃত্বের অন্যতম নেতা ছিলেন তিনি। এ ছাড়াও আওয়ামীলীগের দুঃসময়ে বিএনপি জামায়াতের বিভিন্ন প্রকার হামলা ও নিপীড়নের স্বীকার হয়েছেন বারবার। আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত এ নেতাকেই আসন্ন নির্বাচনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় তৃণমূলের নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণ।

অন্যান্যদের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আছেন বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক প্রফেসর মোঃ আজাদ রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি উপাধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলাম বাবলা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ শফিকুর রহমান শফি এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান ১০ নং কৈজুরী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম।

অপরদিকে উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির প্রার্থীরা একেবারেই নিরব। সদ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রার্থীর ব্যাপক ভরাডুবির পর হতাশা এবং দলের অগোছালো অবস্থা থাকার কারণে কারো নামই শোনা যাচ্ছে না। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে ক্ষমতাসীন দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা।