শিল্পা শেঠির বোনকেও অভিনয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন রাজ

টিবিটি টিবিটি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০২১ | আপডেট: ৯:২৯:অপরাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০২১
ছবি: সংগৃহীত

পর্ন ছবি তৈরি করে সেগুলিকে অ্যাপের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টির স্বামী তথা ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রা। আর এই ঘটনাতেই আরও একবার উঠে এসেছে অভিনেত্রী গেহেনা বশিষ্ঠের নাম।

এবছরের প্রথম দিকে পর্ন ছবি সংক্রান্ত মামলাতেই গ্রেফতার হয়েছিলেন গেহেনা। সেই অভিনেত্রী ফের মুখ খুললেন। দাবি করলেন, রাজ কুন্দ্রা নাকি একটি ছবিতে শিল্পার বোন শমিতাকেx কাস্ট করার পরিকল্পনা করেছিলেন।

গেহানা বশিষ্ঠ দাবি করেন, ‘রাজ তার নিজের শ্যালিকা শমিতা শেঠিকেও অভিনয়ের প্রস্তাব দেন। বলিফেম নামে একটি নতুন অ্যাপ লঞ্চ করার ইচ্ছা ছিল রাজের, যেখানে ভিডিও, মিউজিক ভিডিও, ছবি, ওয়েব সিরিজ দেখা যাবে। এই অ্যাপেরই একটি ছবিতে শ্যালিকা শমিতাকে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন রাজ।’

গেহানা আরও বলেন, ‘তাকে গ্রেপ্তারের কিছু দিন আগেই রাজের অফিসে গিয়ে এ কথা তিনি জানতে পারেন। উপরন্তু শমিতাকে পরিচালনা করার দায়িত্বও নাকি তার উপরেই দিয়েছিলেন রাজ। তবে অ্যাপটিতে সিনেমা, সিরিজের পাশাপাশি পর্ন ভিডিও দেখারও ব্যবস্থা ছিল কিনা তা জানাননি গেহানা।’

রাজ কুন্দ্রার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৭০টি পর্ন ভিডিও উদ্ধার করে মুম্বাই পুলিশ। হটসশটস অ্যাপের মাধ্যমে এই সব পর্ন ভিডিওগুলি দেখতে পেত মানুষ। প্লে স্টোর থেকেই প্রথমে অ্যাপটি পাওয়া গেলেও পরে রাজ তার ব্যক্তিগত সহকারী উমেশ কামাতকে বলেন প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি সরিয়ে নিতে। ইতোমধ্যেই দুজনের হোয়াটসঅ্যাপ চ‍্যাট থেকে এ তথ্য পেয়েছে পুলিশ। বেশি অশ্লীল ভিডিও সরিয়ে সফট পর্ন আপলোড বা পর্ন ভিডিও থেকে রাজের রোজগারের পরিমাণও জানতে পেরেছে মুম্বাই পুলিশ। এই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এটাই একটা বড় প্রমাণ হিসেবে নিচ্ছেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

এদিকে স্বামী রাজের গ্রেপ্তারির পর থেকেই পুলিশের নজরে রয়েছেন শিল্পা। প্রশ্ন ওঠে স্বামীর এই পর্ন ব‍্যবসার সঙ্গে তিনিও যুক্ত কি না। গতকাল শুক্রবার মুম্বাই পুলিশের অপরাধ দমন শাখার কর্মকর্তারা পর্নকাণ্ডে শিল্পাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তদন্তের স্বার্থে ভবিষ্যতে ফের তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে বলে জানানো হয়। রাজের মালিকানাধীন অন্য একটি কোম্পানি ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজ-এর অন্যতম ডিরেক্টর শিল্পা। রাজের পর্নোগ্রাফির ব্যবসা সম্পর্কে শিল্পা আদৌ কিছু জানেন কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

তবে সংবাদ সংস্থা এএনআইকে মুম্বাই পুলিশের জয়েন্ট কমিশনার মিলিন্দ ভারাম্বে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত শিল্পার কোনো প্রত্যক্ষ যোগাযোগ নেই। তবে আমরা তদন্ত করছি। ভুক্তভোগী সকলে এগিয়ে আসুন। মুম্বাইয়ের ক্রাইম ব্রাঞ্চে যোগাযোগ করুন। আমরা উপযুক্ত ব্যবস্থা নেব।’