শুরুতেই তাইজুলের ঘূর্ণিতে চাপে জিম্বাবুয়ে

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:২০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ১২:২২:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৮

ওয়ানডে সিরিজে দারুণ সাফল্য পেয়েছে বাংলাদেশ। সফরকারী জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করেছে। সে ধারাবাহিকতায় এবার সিরিজের প্রথম টেস্টে লড়াইয়ে নেমেছে লাল-সবুজের দল। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে স্টেডিয়ামে এই ম্যাচে টস হেরে বোলিংয়ে নামা স্বাগতিকদের সাফল্য পেতে কিছুটা সময় লাগলেও স্পিনার তাইজুল ইসলামের বোলিং দৃঢ়তায় কিছুটা চাপে আছে জিম্বাবুয়ে।

টেস্টে সাধারণত টস জিতলে ব্যাটিংই বেছে নেন প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলো। টস জিতে ফিল্ডিং নেয়ার ঘটনা খুবই ব্যতিক্রম। দু’একবার ঘটে থাকে। সিলেটে অভিষিক্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতলে হয়তো ব্যাটিংই নিতেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু দুর্ভাগ্য, টস হেরে গেলেন তিনি। অপরদিকে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিলো জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

ব্যাট করতে নেমে জিম্বাবুয়ের শুরুটা ভালোই ছিল। দুই ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজা আর ব্রায়ান চারি মিলে সত্যিকার টেস্ট খেলার দিকেই মনযোগ দিয়েছিলেন। আবু জায়েদ রাহি এবং তাইজুল ইসলামের বল প্রথম থেকেই টার্ন করা শুরু করেছিল। ক্রিকইনফোর কনেমন্টারিতেই খেলা শুরুর আগে বলা হয়েছিল, বল টার্ন করার সম্ভাবনা বেশি।

সে কারণেই শুরু থেকে বিধ্বংসী হয়ে ওঠার চেষ্টা আবু জায়েদ আর তাইজুল ইসলামের। আবু জায়েদের একটি বলে হ্যামিল্টন মাসাকাদজা পরাস্ত হলে আউটের আবেদন করে বাংলাদেশ দলের ফিল্ডাররা। পরে রিভিউও নিয়েছিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। যদিও তখন দেখা গেলো বল ব্যাটের প্রান্ত ছুঁয়েছিল। ফলে নট আউট।

তবে মাসাকাদজা আর চারি জুটিকে খুব বেশিদুর এগুতে দিলেন না তাইজুল ইসলাম। ইনিংসের ১১তম ওভারে এসে ৩৫ রানের জুটিটা ভেঙে দিলেন তিনি। সরাসরি বোল্ড করলেন ব্রায়ান চারিকে। খুব বাজেভাবে স্লগ করতে গিয়েছিলেন চারি। বল ব্যাট মিস করে সোজা মিডল স্ট্যাম্প ভেঙে দেয়। বলা যায়, তাইজুলকে উইকেটটা উপহারই দিয়ে আসলেন ব্রায়ান চারি।

ওয়ানডাউনে ব্যাট করতে নামলেন জিম্বাবুয়ের নির্ভরযোগ্য ব্যাটনসন ব্রেন্ডন টেলর। ওয়ানডে সিরিজে দারুণ ব্যাটিং করেছিলেন তিনি। এ কারণে হ্যামিল্টন মাসাকাদজার সঙ্গে তার জুটিটা ভালোই হবে- এটাই কাম্য ছিল জিম্বাবুইয়ানদের। কিন্তু তাইজুলের ঘূর্ণির কাছে আবারও পরাস্ত হতে হলো জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং লাইনআপকে।

মাসাকাদজার সঙ্গে মাত্র ১২ রানের জুটি গড়েন টেলর। এরই মধ্যে ইনিংসের ১৭তম ওভারের দ্বিতীয় বলটিকে ফরোয়ার্ড ডিফেন্স করতে চেয়েছিলেন টেলর। কিন্তু শট লেগে দাঁড়ানো নাজমুল হোসেন শান্ত মাটি কামড়ানো শটটি তালুবন্দী করে ফেলেন। আম্পায়ার আউট দিলেও কিছুটা সংশয় ছিল টেলরের মনে। টিভি রিপ্লেতে দেখা গেলো সত্যি সত্যি আউট। দুর্দান্ত বোলিং করলেন তাইজুল। ক্যাচটাও ছিল দুর্দান্ত। ৬ রান করে বিদায় নিলেন ব্রেন্ডন টেলর।

এ রিপোর্ট লেখার সময় জিম্বাবুয়ের রান ৩১ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৮৫। ৫২ রান নিয়ে ব্যাট করছেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা এবং ১৩ রান নিয়ে তার সঙ্গী শন উইলিয়ামস।