শুরুতেই ৩ উইকেট খুইয়ে বিপাকে জিম্বাবুয়ে

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৫৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯ | আপডেট: ৯:২২:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রানের সংগ্রহ জমা করেছে। সর্বোচ্চ ৬২ রানের ইনিংস খেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

প্রথম ওভারে উইকেট নিয়েছিলন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নিজের করা ৩য় বলে উইকেট নিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। প্রায় ২ বছর পর টি-টোয়েন্টি খেলতে নামা শফিউল ইসলাম নিজের করা প্রথম বলেই পেয়েছেন উইকেট। শফিউলের বলে আফিফকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ২ রান করা শন উইলিয়ামস।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৬ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৪ রান করেছে জিম্বাবুয়ে।

দ্বিতীয় ওভারেই বল করতে আসেন সাকিব আল হাসান। নিজের করা তৃতীয় বলে কোন রান না করা রেজিস চাকাবভাকে বোল্ড করেন টাইগার দলপতি।

ব্রেন্ডন টেইলর তথা জিম্বাবুয়েকে রানের খাতা খুলতে না দিয়ে উইকেট শিকার করলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। জিম্বাবুয়ের ইনিংসের ৫ম বলে টেইলরকে সাকিবের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান সাইফউদ্দিন। প্রথম ওভার থেকে জিম্বাবুয়ে নিতে পারে মাত্র ১ রান।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মাঠে নামে দু’দল। টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় জিম্বাবুয়ে। যেখানে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান করে টাইগাররা।

প্রথমে ব্যাট করা বাংলাদেশ উদ্বোধনী জুটিতে ৪.৫ ওভারে ঝড়ো ৪৯ রান তুলেছেন লিটন দাশ ও নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে পঞ্চম ওভারে কাইল জার্ভিসের বলে তার কাছে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন শান্ত (১১)। আর পরের ওভারেই ক্রিস এমপোফুর বলে তুলে মারতে গিয়ে নেভিল মাদজিভাকে ক্যাচ দেন লিটন। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান ২২ বলে ৪টি চার ও দুটি ছক্কায় ৩৮ রান করেন।

দলীয় ৬৫ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত ১০ রান করে রায়ান বার্লের বলে আউট হন তিনি। কিন্তু এরপর মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লা দ্রুত ব্যাট চালিয়ে ১২তম ওভারে দলীয় ১০০ রান পূরণ করেন।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে ৭৮ রান করে ফেরেন মুশফিকুর রহিম। টিনোটেন্ডা মাতুমবদজি বলে আউট হওয়ার আগে ২৬ বলে ৩ চার ও এক ছক্কায় ৩২ করেন মুশফিক। আর শেষে ওভারে আউট হন দুর্দান্ত ব্যাটিং করা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কাইল জার্ভিসের বলে আউট হওয়া এই ডানহাতি ৪১ বলে এক চার ও ৫টি ছক্কায় ঝড়ো ৬২ রান করেন। একই ওভারে মোসাদ্দেক হোসেন তুলে মারতে গিয়ে ব্যক্তিগত ২ রানে বিদায় নেন। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৬ রানে অপরাজিত থাকেন।

বাংলাদেশ দলে আনা হয়েছে তিন পরিবর্তন। পেসার শফিউল ইসলামের দলে ঢুকেছেন। আর অভিষেক হচ্ছে ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত ও লেগস্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের।

এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই জয় দিয়ে শুরু করেছি। তবে আরেক দল আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে হার দেখে। ফলে ফাইনালে যেতে হলে এই ম্যাচ জেতা এক প্রকার নিশ্চিত করতে হবে টাইগারদের।

বাংলাদেশ একাদশ: নাজমুল হোসেন, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, আফিফ হোসেন, আমিনুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, শফিউল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, ব্র্যান্ডন টেইলর, রিচমন্ড মুতুমবামি, শন উইলিয়ামস, টিনোটেন্ডা মাতুমবদজি, রায়ান বার্ল, রেজিস চাকাভা, নেভিল মাদজিভা, কাইল জার্ভিস, আইন্সলে এনডিলোভু, ক্রিস এমপোফু।