মির্জা ফখরুলই শেষ পর্যন্ত ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র হলেন !

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৩৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ১১:৩৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৮
ফাইল ছবি

গত ২৮ অক্টোবর আচমকা জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব ঘোষণা করেছিলেন, তাকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র করা হয়েছে। এখন থেকে ড. কামাল হোসেন ও তার ছাড়া কারও বক্তব্য ঐক্যফ্রন্টের বলে বিবেচিত হবে না।

তার এই ঘোষণায় তাৎক্ষণিকভাবে হতবাক হয়ে যান বৈঠকে অংশ নেয়া বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল, ড. খন্দকার মোশরারফ ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।





প্রকাশ্যে প্রতিবাদ না জানালেও তাদের মনোভাব এমন, জোটে সবচেয়ে বড় শরিক বিএনপি। দলনেতা কামাল হোসেন হলে স্বাভাবিকভাবেই মুখপাত্র হবেন বিএনপির কেউ। এ নিয়ে দলটির মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। পরে বিষয়টি ড. কামাল হোসেন পর্যন্ত গড়াই।

তিনিই শনিবারের বৈঠক থেকে মির্জা ফখরুলকে জাতীয় ঐকফ্রন্টের মুখপাত্র করার প্রস্তাব করেন। বাকিরাও সমর্থন দেন। পরে বৈঠক চলাকালে বাইরে এসে মান্না এ তথ্য সাংবাদিকদের জানান।





তিনি বলেন, ‘এখন থেকে ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বৈঠক শেষে আপনাদের বিস্তারিত জানাবেন।’

এ সময় তিনি বলেন, ‘সংলাপ শেষে তফসিল ঘোষণার অনুরোধ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে শনিবার চিঠি দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে কমিশন কী সিদ্ধান্ত নেয়, তা দেখে বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’





মান্না আরও বলেন, ‘আবারও সংলাপ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেয়া হবে বলে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।’

ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক প্রমুখ।