সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে আছেন মহিলা আ’লীগ নেত্রী জুঁই শায়লা!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২:০৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯ | আপডেট: ২:০৭:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত ৫০টি নারী আসনের মধ্যে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর এর শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদিকা, উত্তরা পশ্চিম থানা মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদিকা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সফল নারী উদ্যোক্তা, জননেত্রী দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন জুঁই শায়লা নারী সংরক্ষিত আসনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।

সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে-পরে এই নারী নেত্রী নিজ উদ্দ্যেগে সরকারের উন্নয়ন চিত্র জনগণের সামনে তুলে ধরেছেন। নির্বাচনের আগে জনগণের সামনে সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে তৃণমূল চষে বেড়িয়েছেন।

তৃণমূল থেকে উঠে আসা এই নেত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি সম্পুর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস রেখে রাত দিন সংগঠনের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে সম্পুর্ন আশাবাদী।

তারই ধারাবাহিকতায় জনপ্রিয় এই নেত্রী জুঁই শায়লা ঢাকাবাসীর কল্যানে সর্বক্ষণ কাজ করে যাচ্ছেন। তার গতিশীল সাংগঠনিক কর্মতৎপরতায় বর্তমানে সংগঠন অত্যন্ত সু-সংগঠিত হয়েছে। জুঁই শায়লাকে গরিব দু:খি মানুষদের ভালোবাসেন। তাদের সুখে দু:খে সবসময়ই পাশে থাকেন।

পাশাপাশি তিনি অনেক ধরনের সামাজিক কর্ম-কান্ডের সাথে জড়িত। তিনি উত্তরা ক্লাবের দাতা সদস্য, উত্তরা লেডিস ক্লাবের আজীবন সদস্য, রয়েল ক্লাবের দাতা সদস্য, গুলশান ক্লাবের আজীবন সদস্য এবং এছাড়া তিনি বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংঘঠনের সাথে জড়িত।

উল্লেখ্য, জাতীয় সংসদের মোট সদস্য ৩৫০ জন। এর মধ্যে ৩০০টি সংসদীয় আসনে ভোটারদের সরাসরি ভোটে নির্বাচন হয়। আর ৫০টি আসন সংবিধান অনুযায়ী নারীদের জন্য সংরক্ষিত।

সরাসরি ভোটে রাজনৈতিক দল ও জোটের পাওয়া আসনের আনুপাতিক হারে সংরক্ষিত ৫০টি আসন বণ্টন করা হয়। সংসদের সাধারণ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণকারী ব্যক্তিরা সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের নির্বাচনের ভোটার। গত ৩০ ডিসেম্বর ২৯৮টি আসনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় সংসদ (সংরক্ষিত মহিলা আসন) নির্বাচন আইন অনুযায়ী, কোনো সাধারণ নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফল সরকারি গেজেটে প্রকাশের তারিখ থেকে পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশনকে সংরক্ষিত মহিলা আসনের নির্বাচন করতে হবে।

এ জন্য সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন আকারে মনোনয়নপত্র দাখিল, বাছাই ও প্রার্থিতা প্রত্যাহারের তারিখ এবং ভোট গ্রহণের স্থান ও তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করবে ইসি। সেই হিসাবে আগামী ১ এপ্রিলের মধ্যে ইসিকে এই নির্বাচন করতে হবে।