সংলাপে যাওয়ার আগে যা বললেন মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত: ৭:৪০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০১৮ | আপডেট: ৭:৪৫:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০১৮
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সংলাপে বসতে যাচ্ছেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। সংলাপের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। দলে আছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও।

রওনা হওয়ার আগে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে তিনি বলেছেন,‘আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমেই মিথ্যা ও সাজানো মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি আদায় করা হবে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা দেশে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। যে নির্বাচনে মানুষ তাদের ভোট দিয়ে পছন্দের সরকার নির্বাচন করবে। কিন্তু সরকার পরিস্থিতিকে জটিল করছে। আমাদের চেয়ারপারসনের সাজার মেয়াদ বাড়িয়ে দেয়া হলো। বিষয়টি নেত্রীকে জানানোর পর তিনি বলেছেন, ‘সাজা যত দেয়ার দিক। তবুও মাথা নত করবো না।’

ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে পরাজিত করা হবে এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন,‘আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হই। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে পরাজিত করবো।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বন্ধুগণ, আমরা মাথা নত করবো না। আমরা নিজেদের অধিকারের আন্দোলন ও লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে তা আদায় করবো আমাদের বেঁচে থাকার অধিকার। ১৯৭১ সালের যে চেতনা নিয়ে স্বাধীনতার যুদ্ধ করেছিলাম, সেই অধিকার আমরা প্রতিষ্ঠা করবোই করবো।’

রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘সরকারের নিয়ন্ত্রণে এখন বিচার ব্যবস্থা চলছে। তার প্রমাণ গত দুই দিনে বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায় হয়ে গেছে। সরকার প্রতিটি প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে দিয়েছে। দেশের বিচার ও প্রশাসন ব্যবস্থাকেও তারা ধ্বংস করে দিয়েছে। আজকে দেশ আর গণতান্ত্রিক দেশ নেই, স্বৈরতান্ত্রিক দেশে পরিণত হয়েছে।’

গণতন্ত্রের সঙ্গে বেগম খালেদা জিয়া ওতপ্রতোভাবে জড়িয়ে আছেন মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘গণতন্ত্র মানেই বেগম খালেদা জিয়া। তাই আজকে তার মুক্তির দাবিতে অনশন করছি।’

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির পুনরাবৃত্তি এ দেশের জনগণ হতে দেবে না, ইনশাআল্লাহ। তাই আজকে বলতে চাই, আমরা যে সাত দফা দাবি প্রণয়ন করেছি, তা এ দেশের জনগণের প্রত্যাশা অনুযায়ী। অনেক কথাবার্তা হচ্ছে লোক দেখানো এ সংলাপ, আমাদের ফাঁদে ফেলানোর সংলাপ, আমরা বাংলাদেশে অনেক দিন ধরে রাজনীতি করি। যারা আজকে আমাদের সঙ্গে বসবেন, তাদেরও আমরা চিনি। তাই আপনারা আমাদের ফাঁদে ফেলবেন, ধোঁকা দিবেন আর এটা সম্ভব হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের পরিষ্কার কথা। যদি এই দেশে নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করতে হয় এই সাত দফাকে মানতে হবে। আজকে ৭ দফা উপস্থাপন করবো, সাত দফাকে বাস্তবায়ন না করে ইনশাআল্লাহ এদেশে সংসদ হতে দেবো না। হওয়া সম্ভব হবে না। ’

গণঅনশনে অংশ নিয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায় ৭ দিনের মধ্যে ধূলোর মতো উড়ে যাবে।’

মান্না বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ৫ বছর থেকে ১০ বছর করা হয়েছে। নতুন করে আরেকটি মামলায় ৭ বছর সাজা দেয়া হয়েছে। এসব টিকবে না।’

সংলাপ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে কোনো নির্বাচন হবে না। আমাদের দাবি মেনে না নেয়া পর্যন্ত তফসিল ঘোষণা করা যাবে না। সংলাপের নামে কোনো ধাপ্পাবাজি চলবে না।’