সাবেক সেনা কর্মকর্তা ডাঃ নাসিরকে মন্ত্রী হিসাবে দেখতে চায় চৌগাছা-ঝিকরগাছাবাসী

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০১৯ | আপডেট: ১১:৩৬:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০১৯

ইয়াকুব আলী,চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসন থেকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত এমপি সাবেক সেনা কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ মোঃ নাসির উদ্দিনকে মন্ত্রী হিসাবে দেখতে আশায় বুক বেঁেধছে চৌগাছা ঝিকরগাছা উপজেলাবাসী। তিনি সৎ যোগ্য ও মানুষের জন্য নিবেদিত এই নেতা যদি মন্ত্রী হন তাহলে গোটা দেশ উপকৃত হবে বলে মনে করছেন আওয়ামীগীসহ উপজেলার সচেতন মহল। তাই নির্বাচনের আগেই এ অঞ্চলের মানুষের প্রত্যাশা ছিল তিনি একজন মন্ত্রী হবেন। কিন্তু মন্ত্রীর প্রথম তালিকায় তার নাম না থাকায় এলাকাবাসীর মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক সেনা কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ মোঃ নাসির উদ্দিন। তিনি এ জনপদের মানুষের কাছে অতি আপনজন হিসাবে ইতোমধ্যে পরিচিতি লাভ করেছেন। এই নেতাকে এবার মন্ত্রী হিসাবে দেখতে অধীর আশায় বুক বেঁধেছেন নিজ দলসহ উপজেলার সকল মানুষ। সূত্র জানায়, ডাঃ নাসির উদ্দিন যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার মাগুরা গ্রামে ১৯৫৫ সালের ১ জানুয়ারী এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন্র করেন। তার পিতার নাম সৈয়দ আলী বিশ্বাস ও মাতা বেগম খাইরুন্নেছা।

ছোট বেলা থেকেই এই নেতা দেশ ও দেশের মানুষের প্রতি ছিলেন অতি দরদি। নাসির উদ্দিন ১৯৬৯ সালে যশোর মুসলিম একাডেমি স্কুল থেকে ১ম বিভাগে এসএসসি পাশ করেন। ১৯৭১ সালে সরকারী এমএম কলেজ থেকে ১ম বিভাগে এইচএসসি পাশ করার পর ১৯৮০ সালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ এবং ১৯৯৬ সালে মেডিসিনের উপর মাষ্টার ডিগ্রী পাশ করেন। ২০০৫ সালে তিনি এমফিল ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি ১৯৮২ সালে সেনাবাহিনীর অফিসার পদে যোগদান করেন। ২০১৫ সালে তিনি আর্মস ফোর্স এর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও সেনা নায়কের পদ থেকে অবসরে যান। ছাত্র জীবন থেকেই এই নেতা রাজনীতি শুরু করেন। ১৯৭০ সালে তিনি এমএম কলেজ ছাত্রলীগের নির্বাচিত সদস্য হন। ১৯৭৪ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সক্রিয় সদস্য ছিলেন।

বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরাম ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা মহাজোটের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য। তিনি ৮ নং সেক্টরে বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহাম্মদের সাথে চৌগাছা ঝিকরগাছা অঞ্চলে যুদ্ধ করেন। এই নেতা দেশের ৫টি আর্মী মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠায় বিশেষ ভুমিকা রাখেন। ব্যক্তি জীবনে মুক্তিযুদ্ধে বীরত্ব ও সাহসীকতার জন্য সমর পদক, জয় পদক, রণ তারকা পদক, জাতিসংঘের শান্তি মিশনে ইউএনপিস মেডেল ও ২০১১ সালে প্রেসিডেন্ট বর্ডারগার্ড পদকে ভূষিত হন। মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন এবারের নির্বাচনে নৌকার কান্ডারী হওয়ায় আনন্দে আত্মহারা গোটা চৌগাছার মানুষ।

এ বিষয়ে চৌগাছা পৌর কাউ্িন্সলার ও যুবলীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান,পৌর কাউ্িসলার জি এম গোলাম মোস্তফা বলেন আমরা উপজেলা বাসী আমাদের প্রানের নেতা সাবেক সেনা কর্মকর্তা নাসিরকে মন্ত্রী হিসাবে দেখতে চাই।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এসএম সাইফুর রহমান বাবুল বলেন, আমাদের বর্তমান সংসদ সদস্য সম্পর্কে প্রশংসা করা হলে তাকে ছোট করা হবে বলে আমি মনে করি। তিনি একজন মহৎ ব্যক্তি, তাকে আমরা এমপি হিসাবে পেয়ে ধন্য হয়েছি। এই সাহসি সৎ যোগ্য ব্যক্তি যদি বর্তমান সরকারের মন্ত্রী হন তাহলে আমার বিশ্বাস তিনি সফল হবেন, তাই আমরা তাকে মন্ত্রী হিসাবেই দেখতে চাই। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ চৌধুরী বলেন, ডাঃ নাসির উদ্দিন শেখ হাসিনার আস্থাভাজন ব্যক্তি। আমি মনে করি নেত্রী তাকে মন্ত্রী সভায় নিয়ে বৃহত্তর যশোরসহ গোটা দেশবাসিকে সেবা করার সুযোগ করে দিবেন।