সুনামগঞ্জে কিশোরীকে অপহরণের দায়ে দুই যুবকের ১৪ বছরের কারাদন্ড

প্রকাশিত: ১২:৪৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০১৯ | আপডেট: ১২:৪৯:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০১৯
ছবি:সংগৃহীত

হাবিব সরোয়ার আজাদ, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: জোর করে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে কিশোরীকে অপহরণ মামলায় দুই যুবককে ১৪ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত। মঙ্গলবার সুনামগঞ্জ জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত’র বিজ্ঞ বিচারক মো. জাকির হোসেন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, জেলার ধর্মপাশা উপজেলার চকিয়াচাপুর গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের ছেলে আপন মিয়া (২৮) ও একই গ্রামের বাদুর আলীর ছেলে মাসুদ মিয়া (৪০)। সাজাপ্রাপ্তদের একইসাথে ২০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড করা হয়েছে।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় একই রায়ে আদালত মামলা থেকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন একই গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে উজ্জ্বল মিয়া (৪০) ও লেদন মিয়ার ছেলে মুসলিম মিয়া (৫০)। আদালত সুত্র জানায়, ২০১৬ সালের ১৬ মার্চ ধর্মপাশার চকিয়াচাপুর গ্রামের আপন মিয়া তার সহযোগিদের নিয়ে একই গ্রামের১৪ বছর বয়সী এক কিশোরীকে জোর করে বিয়ে করতে অপহরণ করে। ঘটনার ১১ দিন পর ২৭ মার্চ ওই কিশোরী নিজে বাদী হয়ে আপন মিয়াসহ ৪ জনকে আসামী করে ধর্মপাশা থানায় মামলা দায়ের করে।

পুলিশ আপন মিয়া ও মাসুদ মিয়াকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। আদালত দীর্ঘ শুনানী শেষে ওই রায় প্রদান করেন। রায় প্রদানকালে আসামী আপন মিয়া আদালতে উপস্থিত ছিলেন। সাজাপ্রাপ্ত মাসুদ মিয়া জামিনে থাকায় রায় প্রদানকালে তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। মামলা থেকে বেকসুর খালাস পাওয়া দুই আসামী জামিনে রয়েছেন। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন- পিপি (নারী শিশু) অ্যাডভোকেট নান্টু রায় ও আসামীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন।’