হাঁচি আটকালে ‘মারাত্মক ক্ষতি’হতে পারে মৃত্যু,

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৫৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০১৮ | আপডেট: ৮:১৫:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০১৮
ছবিঃ সংগৃহিত

হাঁচি এলে হাঁচুন। হাঁচি আটকে রাখলে মারাত্মক ক্ষতি। এখন টের না পেলেও, পরে মাসুল গুনতে হবে কড়ায় গণ্ডায়। ডাক্তার গবেষকদের একাংশের মতে, হাঁচি চাপলে হতে পারে মারাত্মক বিপদ।

জানেন কি হাঁচির গতিবেগ কত? ঘণ্টায় ১০০ মাইল বা প্রায় ১৬১ কিলোমিটার! কিন্তু যখন তখন, সেখানে সেখানে আচমকা হাঁচি পেলেই মুসকিল!

যেমন কোন জরুরি মিটিংয়ের মাঝে, কোন অনুষ্ঠান চলাকালীন, ভিড় বাসে-ট্রামে… এই জন্য অনেকে হামেশাই হাঁচি চাপার চেষ্টা করেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, হাঁচি চাপলে তা শ্বাসনালির উপর, শরীরের রক্ত সঞ্চালনের উপর, হার্টের উপরও মারাত্মক চাপ সৃষ্টি করে।

মার্কিন চিকিত্সা বিজ্ঞানী মাইকেল বেনিঞ্জার-এর মতে, বহির্মুখী এই চাপকে জোর করে শরীরের ভিতর গিলে নিলে ভিতরে ভিতরে বহু ক্ষতি হতে পারে। যেমন, ল্যারিংসে ফ্র্যাকচার, কোমরে ব্যথা বা মুখের স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

তিনি সতর্ক করে বলেন, জোর করে হাঁচি চাপলে কানের পর্দা ফেটে যাতে পারে, সে ক্ষেত্রে বধির হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। জোর করে হাঁচি চাপলে শরীরের ভিতরে পাঁজর ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে, পেশিতে টান লাগতে পারে।

বেনিঞ্জার জানান, জোর করে হাঁচি চাপলে ফুসফুসে মারাত্মক চাপ তৈরি হয়। হার্ট ও ফুসফুসের মধ্যে যে বায়ুর বিনিময় চলে সেই প্রক্রিয়াও বাধাপ্রাপ্ত হয়। পরিস্থিতি মারাত্মক হলে ও হতে পারে!

অতয়েব, জরুরি মিটিংয়ের মাঝেই হোক বা কোনও অনুষ্ঠান চলাকালীন, কিংবা ভিড় বাসে-ট্রামে… হাঁচি চাপার চেষ্টায় অযথা নিজের বিপদ ডেকে আনবেন না।